৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটায় হস্তক্ষেপ হবে না

Print

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, চাকরি ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের জন্য ৩০ শতাংশ সংরক্ষিত কোটায় হস্তক্ষেপ করার কোনো সুযোগ নেই। গতকাল সচিবালয়ে সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা সংরক্ষণ ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সামপ্রতিক কার্যক্রম নিয়ে এ সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এ তথ্য জানান। তথ্য অধিদপ্তরের (পিআইডি) সম্মেলন কক্ষে এ সংবাদ সম্মেলন। উচ্চ আদালতের রায়ের কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, মুক্তিযোদ্ধা কোটায় যোগ্য প্রার্থী পাওয়া না গেলে মেধা কোটা থেকে পূরণ করার সুযোগ থাকলেও ৩০ শতাংশ কোটা সংরক্ষণের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। তাই এই আদেশ উপেক্ষা করে ভিন্নতর কোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার সুযোগ নেই। এটা করা হলে তা আদালত অবমাননার শামিল হবে।

তিনি বলেন, কোটা পর্যালোচনায় গঠিত সরকারের কমিটি এ বিষয়ে সচেতনতার সঙ্গে সিদ্ধান্ত নেবে। এ বিষয়ে আদালতের রায়ের কপি ওই কমিটির কাছে পাঠানো হয়েছে। এদিকে চাকরিপ্রত্যাশীরা কোটা সংস্কারের আন্দোলনের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরেই আন্দোলন করে আসছেন। আন্দোলনকারীদের দাবি, চাকরিতে ৫৬ শতাংশ কোটার মধ্যে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা। সার্বিকভাবে কোটা ১০ শতাংশে নামিয়ে আনতে হবে। এ ছাড়া সাধারণ শিক্ষার্থীদের জন্য চাকরির বয়সসীমা ৩০ বছর হলেও মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানদের ক্ষেত্রে তা ৩২ বছর। একটি অভিন্ন বয়সসীমার দাবিও রয়েছে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 58 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com