অজান্তেই যেসব অভ্যাসে ক্ষতি হচ্ছে আপনার মেরুদণ্ড

Print

মেরুদন্ডে ব্যথা প্রচলিত একটি সমস্যা। জীবনের কোনো না কোনো সময় এই ব্যথায় ভোগেননি, এমন মানুষ পাওয়া মুশকিল। শরীরের যত্ন নেওয়া যেমন জরুরি, ঠিক তেমনই জরুরি স্নায়ুতন্ত্রের প্রতি বিশেষ খেয়াল রাখা। আমাদের মেরুদণ্ড স্নায়ুতন্ত্রের সঙ্গে জড়িত। তাই মেরুদণ্ডের সামান্য ক্ষতিও ডেকে আনতে পারে বড় ধরনের বিপদ। শিরদাঁড়া বা মেরুদণ্ডে গুরুতর সমস্যা হলে তা মানুষকে পঙ্গু পর্যন্ত করে দিতে পারে। কিন্তু আমরা দৈনন্দিন কাজকর্মে এমন কিছু ভুলত্রুটি করে থাকি, যা আমাদের মেরুদণ্ডের ক্ষতি করে।

আসুন জেনে নেই কয়েকটি অভ্যাসের কথা যেগুলো অজান্তেই আমাদের মেরুদণ্ডের ক্ষতি করছে…

১) আপনি কি সারা দিন এক জায়গায় বসে কাজ করেন? দীর্ঘদিন, ঘণ্টার পর ঘণ্টা এভাবে কাজ করতে হলে শিরদাঁড়া বা মেরুদণ্ডের সমস্যা হতেই পারে।

২) যদি দীর্ঘদিন নিয়মিত মাত্রাতিরিক্ত কাজের চাপে পর্যাপ্ত বিশ্রাম না হয়, সে ক্ষেত্রে মেরুদণ্ডের সমস্যা হতে পারে।

৩) খুব ভারী ব্যাগ (যেমন, ল্যাপটপ, বই বা অত্যন্ত ভারী জিনিসপত্র) নিয়মিত পিঠে নিলে কাঁধে আর পিঠে অতিরিক্ত চাপ পড়ে মেরুদণ্ডে সমস্যা দেখা দিতে পারে।

৪) পর্যাপ্ত বিশ্রামের অভাবে যেমন শিরদাঁড়ার সমস্যা হতে পারে, তেমনই অতিরিক্ত বিশ্রাম ও আলস্যের ফলেও মেরুদণ্ডের সমস্যা হতে পারে।

৫) ঘুমানোর সময় অনেকেই অদ্ভুত ভঙ্গিতে শুয়ে থাকেন। অস্বাভাবিক ভঙ্গিতে পিঠ, কোমর বেঁকিয়ে শোয়ার অভ্যাস মেরুদণ্ডের ক্ষতি করে।

৬) নিয়মিত হাই হিল পরার অভ্যাস বা শক্ত জুতো পরার অভ্যাসও মেরুদণ্ডে অস্বাভাবিক চাপ সৃষ্টি করে। এর থেকে পরবর্তী সময়ে মেরুদণ্ডে মারাত্মক সমস্যা হতে পারে।

৭) দীর্ঘক্ষণ ঝুঁকে বসে মোবাইলে চ্যাট বা ল্যাপটপে ব্যস্ত থাকলে মেরুদণ্ডে অতিরিক্ত চাপ পড়ে। এতে করে ভবিষ্যতে মেরুদণ্ডে মারাত্মক সমস্যা হতে পারে।

৮) দীর্ঘসময় ধরে গাড়ি বা বাইকে ড্রাইভ করলে মেরুদণ্ডের সমস্যা হতে পারে।

৯) আচমকা খুব ভারী কোনো জিনিস তোলার চেষ্টা করলে টান পড়ে মেরুদণ্ডে চোট লাগতে পারে।

১০) খুব শক্ত, অসমান বিছানায় দীর্ঘদিন ধরে শোয়ার অভ্যাস থাকলেও মেরুদণ্ডের সমস্যা হতে পারে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 20 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com