অনিশ্চয়তার কবলে বিএনপির কাউন্সিল

Print

অনিশ্চয়তায় বিএনপির সপ্তম জাতীয় কাউন্সিল। অন্যদিকে গঠনতন্ত্রের বাধ্যবাধকতা থাকলেও নির্বাহী কমিটির সভা করতে পারছে না দলটি। প্রতি ছয় মাসে অন্তত একবার এ বৈঠকের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। গত সাড়ে তিন বছরে মাত্র একবার এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। কোনো বর্ধিত সভা করতে পারেনি দলটি। এতে দলের অভ্যন্তরীণ সাংগঠনিক তৎপরতাও প্রশ্নের মুখে পড়েছে। দলের কার্যক্রমে সমন্বয় নেই। দল পরিচালনায় তৃণমূলের সঙ্গে কোনো আত্মিক সম্পর্ক গড়তে পারছে না হাইকমান্ড। ফলে নেতাকর্মীদের মধ্যে কোনো দায়বদ্ধতাও তৈরি হচ্ছে না। সমকাল

২০১৬ সালের ১৯ মার্চ দলের ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। এর সাড়ে চার মাস পর দলের স্থায়ী কমিটি, ভাইস চেয়ারম্যান আর নির্বাহী কর্মকর্তা ও সদস্য নিয়ে প্রায় ৫৯৪ সদস্যের বিশাল কমিটি করে বিএনপি। দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি কারাগারে যাওয়ার আগে ৩ ফেব্রুয়ারি নির্বাহী কমিটির বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সভায় খালেদা জিয়া দলের নেতাদের দিকনির্দেশনা দিয়ে যান, যাতে তার অবর্তমানে দলের মধ্যে কোন্দল বা বিভ্রান্তি তৈরি না হয়। ওয়ান ইলেভেনের সময়কারের মতো দলে ভাঙনের সৃষ্টি না হয়। দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী এর আগে কিংবা পরে নির্বাহী কমিটির কোনো সভা অনুষ্ঠিত হয়নি। এতে দল পরিচালনায় সবাইকে সরাসরি সম্পৃক্ত করতে পারছে না হাইকমান্ড। এমনকি দলের সম্পাদকমণ্ডলী থেকে শুরু করে নির্বাহী সদস্যদের কার্যক্রমের মনিটরিং কিংবা কৈফিয়তের কোনো ব্যবস্থাও তৈরি হচ্ছে না।

নেতাকর্মীরা মনে করছেন, দলে দ্রুত শুদ্ধি অভিযান পরিচালনা করা উচিত। নিষ্ফ্ক্রিয়দের তালিকা করে বাদ দিয়ে দুঃসময়ের ত্যাগী ও যোগ্য নেতাদের নির্বাহী কমিটিতে জায়গা দেওয়া উচিত। নইলে চলমান সরকারবিরোধী আন্দোলন হোঁচট খাবে। দলও চরম ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

এ বিষয়ে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, দলের নেতারা বেশি কমিটি করেন, কিন্তু কেউ সংগঠন করেন না। একটি কমিটি মানেই সংগঠন না। আর নেতৃত্বের যেখানে দুর্বলতা দেখা হয়, সেখানে বহুজনের কমিটি হয়। কমিটিতে যখন যুগ্ম আহ্বায়কের সংখ্যা বেশি থাকে তখনই বুঝতে হবে, কেউ কাউকে মানেন না। তার মানে অঙ্গীকারের অভাব। সংগঠনের চেয়ে নিজেকে সবাই বড় মাপের নেতা মনে করেন। দলের উপদেষ্টা-সম্পাদক বেশি, কর্ম সম্পাদকটা একটু কম।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 36 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com