অপারেশন ‘গর্ডিয়ান নট’-এ নিহত ২

Print
নরসিংদীর মাধবদীতে দুইটি জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পেয়েছে পুলিশের কাউন্টার টোরোরিজম (সিটিটিসি) ইউনিট। একটি উপজেলার শেখের চর ভগীরথপুর চেয়ারম্যান মার্কেট এলাকায়। অন্যটি মাদবদী ছোট গদাইরচর গাংপাড় এলাকায়। মঙ্গলবার বিকাল ৪টার দিকে ভগীরথপুর এলাকার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়। ‘অপারেশন গর্ডিয়ান নট’ নামে এ অভিযানে নারীসহ দুই জঙ্গি নিহত হয়েছে। সেখান থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। জঙ্গিরা সেখানে চারটি বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত মাদবদী ছোট গদাইরচর গাংপাড় এলাকার আস্তানাটি ঘিরে রেখেছিল পুলিশ।

অভিযান শেষে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান ডিআইজি মনিরুল ইসলাম জানান, অভিযানে নিহতদের মধ্যে একজন পুরুষ ও একজন নারী।

তারা নব্য জেএমবির সদস্য। প্রাথমিকভাবে তাদের পূর্ণাঙ্গ পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। গত ৩ অক্টোবর এখানে ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়েছিল তারা। ছোট গদাইরচর গাংপাড় এলাকার জঙ্গিদের সঙ্গে এখানকার জঙ্গিদের যোগসাজস রয়েছে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মনিরুল ইসলাম বলেন, নিহতরা পুলিশের গুলিতে মারা গিয়েছে, নাকি নিজেরা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে মারা গেছে তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তিনি আরও বলেন, অপর জঙ্গি আস্তানা মাধবদী গাঙপাড় এলাকায়ও দিনের আলোতে অভিযান চালানো হবে। তাদেরকেও আত্মসমর্পণের আহ্বান জানানো হবে। আত্মসমর্পণ না করলে আমরা অ্যাকশনে যাবো।

মঙ্গলবার সন্ধায় পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, আমাদের কাছে গোয়েন্দা তথ্য ছিল, দুর্গাপূজা এবং সামনের জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে জঙ্গিরা বড় ধরণের নাশকতার জন্য সংগঠিত হচ্ছে। তারা কোথায় হামলা চালাতে পারে সে বিষয়ে সঠিক তথ্য ছিল না। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে নজরদারি বাড়িয়ে জঙ্গি আস্তা দুইটির সন্ধান পাওয়া যায়। মাদবদী গদাইরচর গাংপাড় এলাকায় কখন অভিযান চালানো হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা তাদের আত্মসমর্পণের আহবান জানিয়েছি। রাতভর চেষ্টা করবো, যাতে তারা অত্মসমর্পণ করে। কারণ, আমরা কোনো হাতহতের ঘটনা দেখতে চাই না। যদি তারা অত্মসমর্পণ না করে, তাহলে দিনের আলোতে সেখানে অভিযান চালানোর পরিকল্পনা আছে।

এদিকে জঙ্গি আস্তানার খবর ছড়িয়ে পড়ার পর এলাকাবাসীর মধ্যে আতংক দেখা দেয়। জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পাওয়ার পর মঙ্গলবার সকাল থেকে ঢাকা সিলেট মহাসড়কে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। রাস্তায় পুলিশের তৎপরতা ছিল উল্লেখযোগ্য। সকাল থেকেই জঙ্গি আস্তানা দুইটির আশাপাশের দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়। আশপাশের বাসার অনেকে জিম্মি হয়ে পড়েন। যারা ভোরে বাসা থেকে বের হয়েছে তাদের অনেকে বাসায় প্রবশে করতে পারছিলেন না।

সোমবার রাত ১০ টার পর থেকেই বাড়ি দুইটি ঘিরে রাখে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল (সিটিটিস) ইউনিটের সদস্যরা। ভোর ৬ টার দিকে আস্তানা দুইটির আশপাশ এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে স্থানীয় প্রশাসন। সরিয়ে নেয়া হয় এলাকার বাসিন্দাদের। শেখেরচর ভগীরথপুর চেয়ারম্যান মাকের্টের পাশের বাড়িতে সকাল ১০টার পর অভিযান শুরু করে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। ওই বাড়ির মালিক বিল্লাল মিয়া। তিনি ড্রাইং ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত। ইভা টেক্সটাইল মিলের মালিক তিনি। পঞ্চম তলার ৫ তলার একটি ফ্ল্যাটে জঙ্গিদের আস্তানা খুঁজে পায় পুলিশ।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিক ঘটনাস্থলে আসেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। সকাল ৯টা ৫৩ মিনিটে শেখেরচর ভগীরথপুর চেয়ারম্যান মাকের্টের পাশে অবস্থিত ঘটনাস্থলে আসেন সিটিটিসি ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম। রাতেই সেখানে আসেন পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন। জেলা পুলিশ, অ্যান্টি টোরোজিম ইউনিট, সিটিটিসির বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, সোয়াট এবং সিআইডির ক্রাই সিন ইউনিটসহ আইপ্রয়োগকারী সংস্থার অন্যান্য ইউনিটের সদস্যরা একে একে ঘটনাস্থলে আসেন। অভিযান শুরুর পর দিনভর থেমে থেমে গুলির শব্দ শোনা যায়। জঙ্গিরা বাসার ভেতর থেকে এবং পুলিশ বাইরে থেকে জঙ্গিদের লক্ষ্য করে গুলি বর্ষণ করে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে বেলা সাড়ে ১২টার পর আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী সাংবাদিকদের জানান, আশা করছি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে অপারেশন শেষ করতে পারবো। কী ধরনের অস্ত্র বা বিস্ফোরক আছে সে বিষয়ে কিছু ধারণা আছে। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে আমরা এ তথ্য নিশ্চিত হলেও কী পরিমাণ অস্ত্র গোলা-বারুদ মজুদ আছে তা নিশ্চিত নই। কাউন্টার টেরিজম ইউনিট এখানে অপারেশন পরিচালনা করছে। এ অভিযান শেষ হলে ছোট গদাইরচর গাংপাড় এলাকার নিলুফা ভিলায় অপারেশন শুরু হবে। কতজন জঙ্গি আছে তা নিশ্চিত নই। তবে একাধিক জঙ্গি আছে। অপারেশনের প্রটোকল অনুযায়ী যেসব ব্যবস্থা নেয়ার দরকার সেসব ব্যবস্থা নিয়েই অপারেশন পরিচালনা করছি। জঙ্গীদের আত্বসমর্পণের সুযোগ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তারা সে সুযোগ নেয়নি।

প্রটোকল অনুযায়ী ঘ্যাস-বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। এরপর গুলি বর্ষণের মধ্য দিয়ে মূল অপারেশন শুরু করা হয়।
অপারেশনের নাম ‘গর্ডিয়ান নট’ দেয়ার কারণ হিসেবে আইজিপি বলেন, নট মানে হচ্ছে গেরু। এটা এমন জটিল গেরু যা খুলতে কষ্ট হয়। অপাশেনটা খুব জটিল। এখানে পুলিশের চেয়ে জঙ্গিরা সুবিধাজনক আবস্থায় আছে। সুতরাং আমাদের জন্য অপারেশনটা একটু কষ্টকর।

অভিযান শুরুর আগ মুহূর্তে সিটিটিসি ইউনিটের প্রধান ডিআইজি মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, জঙ্গিদের আত্মসমর্পনের আহ্বান জানানো হয়েছে। তারা আত্মসমর্পন করেনি। তাই দ্রুত সময়ের মধ্যে এখানে অভিযান শুরু হবে। গণবসতি এলাকা হওয়ায় সর্বোচ্চ সর্তকর্তার সঙ্গে অভিযান চলবে। তিনি বলেন, ইতিমধ্যে কাউন্টার টেরোরিজমের পাশাপাশি পুলিশের বিশেষ বাহিনী সোয়াট ও বোমা নিস্ক্রীয়কারী দল অভিযানে যোগ দিয়েছে। ইতিমধ্যে এলাকার লোকজনকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, আমাদের কাছে তথ্য রয়েছে, জঙ্গি আস্তানায় অনেক বিস্ফোরক দ্রব্য আছে। সেখানে কতজন জঙ্গি আছে তা এখনও নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

তবে, মঙ্গলবার সকাল থেকে আইন প্রয়োগকারী সংস্থায় উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন শেখেরটেকের বাড়িতে চারজন জঙ্গি অবস্থান করেছে। আর মাধবদী পৌরসভার গাঙপাড় এলাকার আফজাল হাজির ‘নিলুফা ভিলা’ নামের ৭ তলা একটি বাড়িতে ৩ জঙ্গি সোমবার রাত থেকে ঘিরে রাখে সিটিটিসি সদস্যরা। ওই ভবনের তৃতীয় তলায় ‘মিততাহুল জান্নাহ মহিলা মাদ্রাসা’ নামের একটি মাদ্রাসা আছে। ভবনটির ৭ তলায় জঙ্গিদের অবস্থান চিহ্নিত করে পুলিশ। সকালে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়, নিলুফা ভিলায় তিনজন জঙ্গি অবস্থান করছে। এদের মধ্যে ২ জন নারী ও এক জন পুরুষ রয়েছে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 49 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com