অ্যাম্বুল্যান্স গাড়ির সামনে “AMBULANCE” কথাটি উল্টো করে লেখা হয় কেন?

Print

অ্যাম্বুলেন্স গাড়িটি সম্পর্কে আমরা সকলেই পরিচিত।
সাধারণত মুমূর্ষু রোগীদের দ্রুত হাসপাতালে পৌঁছে দেওয়ার জন্য ‘অ্যাম্বুলেন্স’ পরিসেবা ব্যবহার করা হয়।

অ্যাম্বুলেন্স গাড়িগুলি সাধারণত খুব দ্রুতগামী হয়। আধুনিক অ্যাম্বুলেন্স হিসেবে ব্যবহারযোগ্য গাড়িতে নিচের উল্লেখিত বৈশিষ্ট্যসমূহ থাকতে হয়। এগুলো হলো-

1) গাড়ি অবশ্যই দ্রুতগামী হতে হবে,

2) গাড়িতে লাউড সাইরেন থাকতে হবে,

3) গাড়িতে ঘূর্ণায়মান সতর্কতাজ্ঞাপক লাল বাতি লাগানো থাকতে হবে,

4) ট্রাফিক নিয়ম-কানুন ভালোভাবে জানতে হবে,

5) গাড়ির সামনে ও পিছনের দিকে বড় বড় হরফে ‘অ্যাম্বুলেন্স’ কথাটি লেখা থাকতে হবে,

6) গাড়ির চালককে সুদক্ষ হতে হবে এবং রাস্তা-ঘাট সম্পর্কে বিশেষভাবে পারদর্শি থাকতে হবে।

7) এই বৈশিষ্ট্য সমূহ না থাকলে কোনো গাড়ি ‘অ্যাম্বুলেন্স’ হিসেবে ব্যবহারযোগ্য হবে না। প্রাচীনকালের অ্যাম্বুলেন্সে কিন্তু এসব সুবিধা ছিল না।

কোনো মুমূর্ষ রোগীকে নিয়ে হাসপাতালে যাওয়ার পথে গাড়ি চালানোর সময় একটি অ্যাম্বুলেন্সকে এই বৈশিষ্ট্য সমূহ প্রয়োজনানুসারে ব্যবহার করতে হয়। গাড়িতে সংযুকক্ত সাইরেন অন্য গাড়িকে সাবধান করে দেয় যে, একটি অ্যাম্বুলেন্স যাচ্ছে। যদি গাড়িতে কোনো স্পিকার না থাকে, তবে গাড়ির ছাদে লাগানো ঘূর্ণায়মান আলো অন্য গাড়ি বা লোককে সাবধান করে দেয়।

AMBULANCE শব্দটি অ্যাম্বুলেন্সের সামনের দিকে উল্টোভাবে লেখা
যদি তাও না থাকে তবে সামনের গাড়ি যাতে বুঝতে পারে পেছনে একটি অ্যাম্বুলেন্স রয়েছে এবং নিজের রিয়ার ভিউ মিররে গাড়ির লেখা ‘অ্যাম্বুলেন্স’ কথাটি বুঝতে পারে সেজন্য ‘অ্যাম্বুলেন্স’ (AMBULANCE) কথাটি উল্টোভাবে লেখা থাকে।

AMBULANCE শব্দটি অ্যাম্বুলেন্সের সামনের দিকে উল্টোভাবে লেখা
এখানে উল্লেখ করা যায় যে, অ্যাম্বুলেন্স যখন কোনো মুমূর্ষ রোগীকে হাসপাতালে বহন করে নিয়ে থাকে, তখন তার জন্য প্রচলিত ট্রাফিক নিয়ম প্রযোজ্য হয় না। ফলে গাড়ির চালক নিজের প্রয়োজনমতো রাস্তার সোজা বা উল্টো যে কোনো দিক দিয়েই গন্তব্যের দিকে এগিয়ে যেতে পারে।

এসময় অন্যান্য গাড়িকেও অ্যাম্বুলেন্স গাড়ির জন্য স্থান করে দিতে হয়।
অবশ্য বর্তমানকালের অনেক অ্যাম্বুলেন্সই এসব নিয়ম সঠিকভাবে মেনে চলেন না। ফলে অনেকক্ষেত্রেই নানা ধরনের দূর্ঘটনার মুখোমুখি হতে হয়।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 301 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com