আইডি হ্যাকের মচ্ছব

Print

হ্যাকারদের দৃষ্টি এখন ফেসবুক, ই-মেইল ও ওয়েবসাইটে। তাদের কালো থাবায় সম্প্রতি বেড়েছে আইডি হ্যাকের ঘটনা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের একের পর এক আইডি হ্যাক হচ্ছে। হ্যাকার গোষ্ঠি এখন বেপরোয়া। আইডি হ্যাক করে তারা মানুষকে নানাভাবে হয়রানি করছে। ফাঁদে ফেলে টাকা দাবি করছে। অনেকেই হ্যাকারদের টাকা দিয়ে আইডি উদ্ধার করছে। আবার কেউ কেউ পুলিশের সাইবার ইউনিটে যোগাযোগ করছে।

ডিএমপির সাইবার ক্রাইম ডিভিশন সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরে শুধুমাত্র ফেসবুক আইডি হ্যাকের অভিযোগ নিয়ে তাদের কাছে অন্তত সাড়ে তিন হাজার ভুক্তভোগী এসেছে।

পাশাপাশি ইমেইল আইডি হ্যাক, ফেইক আইডি তৈরি করে প্রতারণা, অনলাইনে যৌন হয়রানি, মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশ, রকেটে প্রতারণার অভিযোগ এসেছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ভুক্তভোগীদের আইডি উদ্ধার করে দেয়া হয়েছে এবং জড়িত হ্যাকারদের বিরুদ্ধে নেয়া হয়েছে ব্যবস্থা। সাইবার ডিভিশন সূত্র বলছে, তাদের হিসাবের বাইরের পরিসংখ্যানটা আরও বেশি। কারন সাইবার হয়রানির শিকার হয়ে অনেকেই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। কিন্তু ভুক্তভোগীদের অধিকাংশই পুলিশের পরামর্শ নেন না। অথচ আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীগুলোর প্রতিটা ইউনিটে আলাদাভাবে সাইবার নিরাপত্তা ও ক্রাইম ইউনিট রয়েছে।

সংশ্লিষ্টসূত্রগুলো বলছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আইডি হ্যাক করার মচ্ছব চলছে। পেশাদার হ্যাকাররা টার্গেট করেই আইডি হ্যাক করছে। এই তালিকায় রাজনীতিবিদ, ব্যবসায়ী, শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিনেত্রী, অভিনেতা, মডেল, চাকরিজীবী কেউ বাদ নেই। বিশেষ করে নারীদের আইডি হ্যাক করে তারা ফায়দা লুটে নিচ্ছে। আইডি হ্যাক করে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য, প্রিয়জনদের সঙ্গে শেয়ার করা অন্তরঙ্গ মূহুর্তের ছবি-ভিডিও দিয়ে ব্ল্যাকমেইলিং করছে। ফিরিয়ে দেবার আশ্বাসে দাবি করছে টাকা। কখনও টাকা নিয়ে ফেরত দিচ্ছে আইডি ও অন্যান্য তথ্য। আবার কখনও পর্যায়ক্রমে প্রতারণা করছে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে হ্যাকাররা আইডি হ্যাক করে সাম্প্রদায়িক অশান্তি সৃষ্টির চেষ্টা করছে।

শিমুল হায়দার ও রুমানা আফরোজ একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী। একই এলাকার হওয়াতে বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম দিন থেকেই তাদের চেনা-জানা ছিল। একই সঙ্গে কয়েক বছর চলাফেরায় তাদের মধ্যে বন্ধুত্ব থেকে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয়। পরিবারের অজান্তেই তারা একটি কাজী অফিসে গিয়ে বিয়ে করেন। এক সঙ্গে সংসার করেন সাত মাস। ধীরে ধীরে তাদের মধ্যে মতের অমিল হয়। প্রায়ই ঝগড়া লেগে থাকত। একসময় ডিভোর্স হয় তাদের মধ্যে। রুমানা জীবনকে নতুনভাবে গুছাতে শুরু করেন। ভেবেছিলেন এবার পরিবারের পছন্দের ছেলেকে বিয়ে করবেন।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 45 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com