আল্লামা হোসাইন আহমদ বারোকুটি’র ইন্তেকাল : বাদ আসর জানাজা

Print
নোমান মাহফুজ: সিলেট তথা দেশের প্রখ্যাত আলেমেদ্বীন , ছদরে এদারা, জামিয়া ইসলামিয়া বারকোট মাদরাসার মুহতামিম শায়খুল হাদিস আল্লামা হুসাইন আহমদ বারকুটি হুজুর আর নেই । (ইন্নালিল্লাহি – – – রাজিউন) শনিবার রাত পৌনে ১২ টায় সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার ঢাকাদক্ষিণ ইউনিয়নের বারকোট গ্রামের নিজ বাড়িতে তিনি ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৬ বছর। তিনি স্ত্রী , ৫ পুত্র – ৩ কন্যাসহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন, ভক্তঅনুরাগী রেখে গেছেন। আজ রোববার(১২ আগস্ট) বাদ আসর গোলাপগঞ্জের বারকোট মাদ্রাসা মাঠে জানাজা অনুষ্টিত হবে।
শাইখুল হাদস আল্লামা হুসাইন আহমদ বারকোটী (দা-মাত বারাকাতুহুম) ১৩৪৭ হিজরি মোতাবেক ১৯২৬ খ্রিস্টাব্দের ১৫ ই ফেব্রুয়ারি বর্তমান সিলেট জেলার ঐতিহ্যবাহী গোলাপগঞ্জ উপজেলাধীন ‘বারকোট’ গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত ধার্মিক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার শ্রদ্ধেয় পিতার নাম মুহাম্মাদ আব্দুল গফুর (রাহ)। তিনি স্বীয় মা-বাবার ছয় সন্তানের মাঝে তৃতীয়। শাইখুল হাদীস আল্লামা হুসাইন আহমদ শাইখে বারকোটী (দা-মাত বারাকাতুহুম) শৈশবে নিজ গ্রামে পড়ালেখা করেন। সমকালীন ‘বারকোট আহমদিয়া মাদরাসা’ যা এই সময়ে সিলেট অঞ্চলে ‘জামেয়া ইসলামিয়া বারকোট’ নামে সুপরিচিত ; এখানেই তিনি কৃতিত্বের সাথে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপ্ত করেন। বারকোট জামেয়ায় তার প্রিয় শিক্ষক ছিলেন– আপন মামা মাওলানা নজীব আলী (রাহ)। ‘বড়হুজুর’ খ্যাত মাওলানা আব্দুল লতীফ (রাহ)। প্রখর মেধা ও তীক্ষ্ণ বোধশক্তির কারণে শৈশবেই তিনি স্বীয় আসাতেযায়ে কেরামের পূর্ণ আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছিলেন। চরিত্রগত দিক বিবেচনায়ও তিনি ‘বাল্যকাল’ থেকেই অত্যন্ত ‘শরীফ ও ভদ্র’। তার ওস্তাদ মহোদয়গণ তাকে নিয়ে শৈশবে যে স্বপ্নগুলো দেখতেন পরম করুণাময় আল্লাহর অশেষ কৃপায় তিনি সেই ‘সীমারেখা’ ছাড়িয়ে বহুদূর পর্যন্ত এগিয়ে গিয়ে ছিলেন। শাইখুল হাদীস আল্লামা হুসাইন আহমদ বারকোটী (দা-মাত বারাকাতুহুম) বর্ণিত আলেমদ্বয়ের তত্ত্বাবধানে ‘প্রাথমিক শিক্ষা বা মাদারিসে কওমিয়ার বুনিয়াদি জ্ঞান’ লাভের পর তার আসাতেযায়ে কেরামের পরামর্শে তিনি তদানীন্তন বৃটিশভারতে সিলেট অঞ্চলের সুখ্যাত দীনি বিদ্যাপীঠ ‘জামেয়া আরাবিয়া হুসাইনিয়া’ রাণাপিং মাদরাসায় ভর্তি হন। সময়ের অন্যতম সেরা এই বিদ্যাপীঠ থেকেই সকল পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকার করে একনাগাড়ে ‘দাওরায়ে হাদীস’ পর্যন্ত সম্পন্ন করেন। বহুমুখী ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক ‘জামেয়া আরাবিয়া হুসাইনিয়া রানাপিং মাদরাসা’ ১৩৫১ হিজরি মোতাবেক ১৯৩১ খ্রিস্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত হয় এবং ১৩৬৮ হিজরি মোতাবেক ১৯৪৮ খ্রিস্টাব্দে শাইখুল হাদীস আল্লামা হুসাইন আহমদ শাইখে বারকোটী (দা-মাত বারাকাতুহুম) ও তার সাথীবর্গকে দিয়ে প্রথম ‘দাওরায়ে হাদীস’ চালু করা হয়। আল্লামা বারকোটী দা-মাত বারাকাতুহুম রানাপিং জামেয়ার ‘প্রথম ফারেগ’ ও সর্বোচ্চ মেধাবী ছাত্র এবং আল্লামা আনওয়ার শাহ কাশ্মীরি (রাহ)-এর প্রিয় শাগরেদ ‘আল্লামা শাইখ রিয়াসত আলী চৌঘরি (রাহ) প্রথম ‘শাইখুল হাদীস’। হাদীসগবেষক ও ইতিহাসবিদ মাওলানা নূর মুহাম্মাদ আজমী (রাহ)-এর বিবরণমতে দাওরায়ে হাদীস সম্পন্ন করার পর থেকেই শাইখুল হাদীস আল্লামা হুসাইন আহমদ বারকোটী (দা-মাত বারাকাতুহুম) অত্র জামেয়ায় ‘হাদীসের ওস্তাদ’ হিসেবে নিয়োজিত হন। তিনি রানাপিং মাদরাসায় ‘হাদীস’ ছাড়াও অপরাপর নানা শাস্ত্র ‘ফুনুনাত’ প্রায় ২৩ বছর স্বনামের সাথে অধ্যাপনা করেন।
জামেয়া আরাবিয়া হুসাইনিয়া রানাপিং মাদরাসায় তার আসাতেযায়ে কেরামের মাঝে রয়েছেন— শাইখুল হাদীস আল্লামা রিয়াসত আলী (রাহ), আল্লামা তাহির আলী তইপুরী (রাহ), মাওলানা মুকাম্মিল আলী (রাহ), মাওলানা আব্দুর রশীদ (রাহ) প্রমূখ প্রাজ্ঞ ওলামা ও মাশায়েখে কেরাম। তৎকালীন রানাপিং-এর ওস্তাদবৃন্দ প্রত্যেকেই একেকজন উঁচুমাপের আল্লাহওয়ালা-বুজুর্গ ব্যক্তি এবং দেশপ্রেমিক আলেমে দীন ছিলেন। শাইখুল হাদীস আল্লামা হুসাইন আহমদ শাইখে বারকোটী (দা-মাত বারাকাতুহুম) ১৯৯১ খ্রিস্টাব্দ থেকে পূর্ববাংলার সর্বপ্রাচীন ‘বেসরকারি মাদরাসাশিক্ষা বোর্ড’ আযাদ দীনি এদারায়ে তা’লিম বাংলাদেশ-এর ‘পরীক্ষানিয়ন্ত্রক’ হিসেবে ছয়বছর পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। অতঃপর ১৯৯৭ খ্রিস্টাব্দ থেকে ‘নাযিমে উমুমী’ বা সাধারণ সম্পাদক মনোনীত হয়ে ২০০৭ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত মোট দশবছর অত্যন্ত দক্ষতার সাথে– সুচারুরূপে এ দায়িত্ব আঞ্জাম দেন।
শাইখুল হাদীস আল্লামা হুসাইন আহমদ শাইখে বারকোটী (দা-মাত বারাকাতুহুম) সর্বশেষ ২০০৭ খ্রিস্টাব্দের ২৯ শে মার্চ ‘আযাদ দীনি এদারায়ে তা’লিম বাংলাদেশ-এর ‘সভাপতি’ নির্বাচিত হয়ে অধ্যাবধি সে গুরুদায়িত্ব পরিচালনা করেন।
[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 348 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com