আশুলিয়ায় প্রতারক চক্রের বাণিজ্য চাকরির নামে হাতিয়ে নিচ্ছে মোটা অংকের টাকা।

Print

খোরশেদ আলম, ঢাকা,জেলা প্রতিনিধি 
আশুলিয়ায় বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি দেয়ার নামে প্রতারক চক্র জমজমাটভাবে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে । আর এতে করে সর্বস্বান্ত হচ্ছে চাকরি প্রার্থী সহজ সরল বেকার যুবক-যুবতীরা। একটি চাকরির জন্য প্রতিনিয়ত প্রতারক চক্রের ফাঁদে পড়ে নিজেদের শেষ সম্বল পর্যন্ত হারাচ্ছে অনেকে। দেশে-বিদেশে চাকরির যে সংকট তাতে বাংলাদেশের শিক্ষিত-অশিক্ষিত উভয় ধরনের বেকাররা উদ্বিগ্ন ও শঙ্কিত। 
দিন দিন যে হারে দেশে বেকারের সংখ্যা বাড়ছে সে হারে বাড়ছে না চাকরির সুযোগ। আর এই সুযোগকেই কাজে লাগিয়ে প্রলোভন দেখিয়ে নিরীহ লোকদের কাছ থেকে প্রতারণার মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে এই প্রতারকচক্র গুলো। 
আশুলিয়ার বাইপাইল এলাকার ইমারত ম্যানশন এর ৪র্থ তলায় অবস্থিত এমনি একটি অফিসের নাম রাজধানী জব সেন্টার। 
রাজধানী জব সেন্টার, বেকার শিক্ষিত যুবক যুবতি এমনকি অশিক্ষিত বেকারদেরও আকর্ষণীয় বেতনে চাকুরী দিয়ে থাকে। বড়বড় কোম্পানির মালিকরা নিয়মিত ধরণা ধরেণ এই জব সেন্টারে। এখান থেকেই জিএম, পিএম পদে চাকুরী পেয়ে যাচ্ছেন কোন প্রকার ইন্টারভিউ কিংবা অভিজ্ঞতা ছাড়াই। যাদের বেতন ৮০ হাজার থেকে ০১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত। এর জন্য শুধুমাত্র রাজধানী জব সেন্টারে ০১ হাজার টাকা দিয়ে সদস্য হতে হবে এবং  পরে ১০ হাজার টাকা দিতে হবে। এই ১০ হাজার টাকা বেতনের পরে দিতে চাইলে তা হবে না বলে সাফ জানিয়ে দেন এই অফিস কর্তৃপক্ষ। এভাবেই বেকার যুবক-যুবতিদের আকর্ষণীয় বেতনে চাকুরী দেওয়ার কথা বলে লক্ষলক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে এই প্রতারক চক্র। 
শুধু কি তাই রাজধানী জব সেন্টারের মালিক মাওলানা মোঃ শাহজাহান সিরাজ নিজেকে বাংলাদেশ মানবাধিকার কাউন্সিল এর সদস্য বলেও পরিচয় দিচ্ছেন। চাকরী ছাড়াও এই অফিসের ঘটক “পারভীন আপা” সহযোহিতায় বিধবা কিংবা তালারক প্রাপ্তদের বিবাহরে জন্য সকল ধর্মের পাত্র পাত্রির সন্ধানও দেওয়া হচ্ছে।
অনুসন্ধানে জানা যায়, অফিসে আসা কোম্পানির মালিক এবং জিএম, পিএম পদে চাকুরী নিতে আসা ও দেওয়ার  সবাই এই চক্রের সদস্য। সহজ সরল ছেলে মেয়েদের সামনে এমন ভাবে কথা বলে, কথা শুনে বোঝার কোন উপাই নেই যে এরাই প্রতারক চক্রের মূল হোতা। 
এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানা সচেতন নাগরিক পরিষদ এর সভাপতি লায়ন মোঃ ইমাম হোসেন জানান, চাকরি দেয়া নাম করে এ রকম ভাবে মানুষকে প্রতারিত করার খবর নতুন নয়। চাকরি নামের সোনার হরিণের পেছনে যারা ছুটছেন তাদের অনেকেই বিভিন্ন সময়ে এরকম প্রতারক চক্রের পাল্লায় পড়েছেন। চাকরি প্রার্থীর সঙ্গে প্রতারণার বিষয়ে সুষ্ঠু তদন্ত হওয়া উচিত। 
এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার ওসি (অপারেশন) মনিরুল হক ডাবলু জানান, এ ধরনের কোন প্রতিষ্ঠান আছে বলে আমার জানা নাই, অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 161 বার)


Print
bdsaradin24.com