আশুলিয়ায় বকেয়া বেতনের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে শ্রমিক বিক্ষোভ

Print

 

ঢাকাঃ জেলা প্রতিণিধি  প্রতিনিধিঃ
রাজধানী ঢাকার অদূরে শিল্পাঞ্চল আশুলিয়ায় দুই মাসের বকেয়া বেতনের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। বুধবার দুপুরে উপজেলার বিশমাইল-জিরাবো সড়কের কুটুরিয়া এলাকায় অবরোধ করেন আশুলিয়ার বেলমা এলাকার ট্রেন্ডি আউটওয়্যাল লিমিটেড কারখানার  শত শত শ্রমিক।
শিল্প পুলিশ ও শ্রমিকরা জানায়, গত দুই মাস ধরে ট্রেন্ডি আউটওয়্যাল লিমিটেড কারখানার শ্রমিকদের বকেয়া বতেন প্রদানে কর্তৃপক্ষের কালক্ষেপনে বিক্ষুব্ধ হয়ে বুধবার সকাল থেকেই তারা কারখানার ভিতরে অবস্থান নিয়ে বকেয়া বেতনের দাবীতে বিক্ষোভ করতে থাকে। একপর্যায়ে বিক্ষোদ্ধ শ্রমিকরা কারখানা থেকে বেড়িয়ে দুপুর একটার দিকে বিশমাইল-জিরাবো সড়কের কুটুরিয়া এলাকায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে। এসময় প্রায় আধ ঘন্টা সড়কটিতে যান চলাচল বন্ধ থাকায় দীর্ঘ যাটজটের সৃষ্টি হয়।
খবর পেয়ে শিল্প পুলিশ ও থানা পুলিশের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌছে বিক্ষোদ্ধ শ্রমিকদেরকে বুঝিয়ে সড়ক থেকে সড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। এসময় শ্রমিকদের সাথে পুলিশে বাকবিতন্ডার ঘটনাও ঘটে। পরে বিক্ষোদ্ধ শ্রমিকরা একযোগে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের দিকে যেতে চাইলে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।
কারখানার শ্রমিক সেলিম মিয়া বলেন, গত দুই মাস ধরে আমাদের বেতন বকেয়া থাকায় আমরা বর্তমানে অনাহারে-অর্ধাহের দিনাতিপাত করছি। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৭ তারিখে বকেয়া বেতনের দাবিতে আমরা কারখানা থেকে হেটে উত্তরায় বিজিএমইএর কার্যালয়ে যাই। এসময় বিজিএমইএ কর্তৃপক্ষও আমাদের সমস্য সমাধানে বুধবার (৩০/১০/১৯) বেতন দেয়ার তারিখ নির্ধারন করেন। কিন্তু বুধবার বেতন দেয়ার তারিখ থাকলেও মালিক কিংবা কারখানর উর্ধ্বতন কোন কর্মকর্তাই কারখানায় না আসায় উত্তেজিত হয়ে ওঠে। তাই বাধ্য হয়ে আমরা বকেয়া বেতনের দাবিতে রাস্তায় নেমেছি।
বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতির সাভার শাখার সভাপতি শাহ আলম বলেন, শ্রমিকরা তাদের যৌক্তিক দাবি আদায়ে রাস্তায় নামতে বাধ্য হয়েছে। আমরাও তাদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে অবিলম্বে তাদের বকেয়া পাওনা পরিশোধ ও কারখানাটি খুলে দেয়ার দাবি জানাচ্ছি। এছাড়া যদি কারখানাটি মালিকপক্ষ বন্ধ করে দেয় তাহলে শ্রম আইন অনুযায়ী তাদের বকেয়া পাওনা পরিশোদেরও দাবি জানান তিনি।
আশুলিয়া শিল্প পুলিশের পরিচালক সানা শামিনুর রহমান বলেন, শ্রমিকদের বকেয়া বেতন পরিশোধের বিষয়ে মালিক পক্ষের সাথে আলোচনা করা হচ্ছে। খুব দ্রুত তাদের বকেয়া পাওনা পরিশোধ করা হবে। এছাড়া শ্রমিকরা দুপুরের পরে যে যার বাসায় চলে যাওয়ায় বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে বলেও জানান তিনি।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 103 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com