একের পর এক চমকপ্রদ প্রচারণায় কানাইঘাটে এগিয়ে যাচ্ছেন খায়ের চৌধুরী

Print


মুফিজুর রহমান নাহিদ সিলেট প্রতিনিধিঃকানাইঘাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রার্থীদের প্রচারণা থেমে নেই। এ উপজেলায় ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের প্রার্থীরা সবাই ভোটের মাঠে নবীন। বিগত নির্বাচনে আওয়ামীলীগ প্রার্থী কে পরাজিত করে বি এন পি সসমর্থিত প্রার্থী আশিক আহমদ জয়লাভ করেন। পরাজিত প্রার্থী নিজাম উদ্দিন আল নিজাম পরবর্তীতে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি লুতফুর রহমান কে পরাজিত করে কানাইঘাট পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হন।ফলে ক্ষমতাসীন দলের বর্তমানে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীরাদের কারোরই পূর্বে নির্বাচন করার অভিজ্ঞতা নেই। এ উপজেলায় আওয়ামীলীগের অনেক প্রার্থীই নির্বাচন করার ইচ্ছা পোষণ করেছেন, তার মধ্যে সবচেয় বেশি আলোচনায় রয়েছেন জেলা আওয়ামীলীগের উপ- প্রচার সম্পাদক এবং সাতবাক ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ পলাশ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ- সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সদ্য সাবেক ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সিলেট বিভাগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সমন্বয়ক খায়ের উদ্দিন চৌধুরী।
খায়ের চৌধুরী ভোটের মাঠে নবীন হলেও রাজনৈতিক কৌশলে জেনো পাকানো বুড়ো। একের পর এক কৌশলে অন্যান্য প্রার্থীদের ধরাশায়ী করছেন। তার কৌশল অন্যদের কে ও পথ দেখাচ্ছে। প্রথমেই তিনি সংবাদ সম্মেলন না করে গ্রামের সকল মানুষকে নিয়ে মতবিনিময় সভা করেন। এতে সকলের সমর্থন নিয়ে গ্রামের মাসজিদ থেকে আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রার্থীতা ঘোষণা করেন। তার পর স্থানীয় পঞ্চায়েত সিস্টেমের ১৩ মৌজার( ১৩ গ্রামের) সাথে মতবিনিময় সভাকরেন এবং এতে প্রায় ১২ হাজার ভোটারের প্রতিনিধিত্বকারী প্রায় ৩৫০০ মানুষ উপস্থিত থেকে প্রশ্নাতীতভাবেই সমর্থন দেন। অনলবর্ষী বক্তা খায়েরের বক্তব্যে মুগ্ধতায় ছড়ায় সমগ্র এলাকায়। গতকাল তার এক ফেসবুক স্টেটাসের মাধ্যমে জানা জায় তিনি ২ পরগানার (৭,৮,৯ ইউনিয়নে) মানুষের মধ্যে প্রায় ৭ হাজার চিঠি বিলি করা শুরু করেছেন জা এলাকাবাসীর কাছে ব্যাপক সাড়া ফেলছে। এ ব্যপারে ৮ নং ঝিংগাবাড়ি ইউনিয়নে ৯ নং ওয়র্ডের সাবেক মেম্বার হাজ্বী মন্তাজ আলি বলেন’ সে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অতি মেধাবী ছাত্র। তার নতুন নতুন কৌশল থাকবে এবং অন্যরা ধরাশায়ী হবে এটাই স্বাভাবিক। আমরা এতে খুশি।
খায়ের চৌধুরীর আরেকটি চমকপ্রদ সফলতা হচ্ছে ৯,নং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফখরুল ইসলাম ও ৯টি ওয়ার্ডের সকল মেম্বারদের সাথে আজ মতবিনিময় করে একক ভাবে সমর্থন আদায়। এ ব্যাপারে ৯ নং রাজাগঞ্জ ইউনয়ের চেয়ারম্যান ফখরুল ইসলাম বলেন, খায়ের চৌধুরী আমাদের এলাকার ছেলে। সে কোন দল করে এটার চেয়েও বড় পরিচয় সে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। দীর্ঘ সময় ধরে সে ছাত্রসমাজের প্রতিনিধিত্ব করেছে। আমাদের স্থানীয় নির্বাচন হয় এলাকা ভিত্তিক। তাই তার দল জানুক যে উন্নয়নের স্বার্থে আমরা তার পক্ষেই আছি। তার বিজয়ের জন্য আমার সকল মেম্বার এবং আমি কাজ করার জন্য ঘোষণা দিয়েছি।’
এ ব্যাপারে খায়ের চৌধুরীকে ফোন দিলে তিনি বলেন’ ভোট হচ্ছে একটা রণ ক্ষেত্র। কৌশল জতো পাকা, ভোটে জেতা ততো সহজ। আমি জিততে এসেছি। নৌকা প্রতীক নিয়ে কানাইঘাটে বিজয়ী হয়ে শেখ হাসিনাকে আমি ই ফুল দেবো।
জনগণ ই আমার শক্তি।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 143 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com