এডিস মশার প্রকোপ এবার আগেভাগেই

Print

নির্ধারিত সময়ের প্রায় দুই মাস আগেই রাজধানীতে অস্তিত্ব পাওয়া গেছে এডিস মশার। যে সময়ে এই মশার প্রজনন হচ্ছে তখন এই মশা নিধনে নগর কর্তৃপক্ষের সাঁড়াশি তৎপরতা থাকে না। ফলে মশার বংশবিস্তার ডেঙ্গু এবং চিকুনগুনিয়ার মতো রোগের প্রকোপ বাড়িয়ে দিচ্ছে।

গত কয়েক বছর ধরেই ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া বিশেষ করে নগরে ব্যাপকভাবে ছড়াচ্ছে। শিশুরা বেশি ঝুঁকিতে। এই রোগে মৃত্যুর ঝুঁকি যেমন আছে, তেমনি বিপুল পরিমাণ খরচও হয়ে থাকে।

এডিস মশার আগাম বংশবিস্তার ভাবিয়ে তুলেছে সিটি করপোরেশনকেও। কারণ, যখন নিধনযজ্ঞ শুরু হবে, তার আগে থেকেই প্রকোপ শুরু হয়ে গেলে পরিস্থিতি কতটা মোকাবেলা সম্ভব, সেই বিষয়টি নিয়ে দুশ্চিন্তাও আছে।

সাধারণত মে থেকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত বিশেষ করে গরম ও বর্ষার সময় এডিস মশার উপদ্রব ও ডেঙ্গুজ্বরের প্রকোপ বেশি দেখা যায়। কিন্তু এবার মে মাসের শুরু থেকে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের ৯৭টি ওয়ার্ডের ১০০টি স্থানে জরিপ চালিয়ে এই মশার লার্ভার অস্তিত্ব পাওয়া গেছে।

এডিস মশার ঢাকা উত্তরের সাতটি ওয়ার্ডে লার্ভা পাওয়া গেছে। তবে ঢাকা দক্ষিণে এর থেকে দ্বিগুণ অর্থাৎ ১৫টি ওয়ার্ডে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেছে। কিছু জায়গায় এর পরিমাণ অনেক বেশি। ইতিমধ্যে এডিস কামড়ে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে বিআরবি ও আজগর আলী হাসপাতালে দুজন মারা গেছে বলেও জানা গেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জাতীয় ম্যালেরিয়া নির্মূল ও এডিসবাহিত রোগ নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির পক্ষ থেকে এই জরিপ কার্যক্রম চালানো হয়। সেখানে এমন চিত্র উঠে এসেছে। যে কারণে এসিড মশার নিধন ও ডেঙ্গু এবং চিকুনগুনিয়া রোগের বিষয় জনগণকে সচেতন করতে ধারাবাহিকভাবে কাজ শুরু করে দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও সিটি করপোরেশন। দুই সিটিতে অঞ্চলভিত্তিক ভাগ করে সচেতনতামূলক সভা করা হচ্ছে। এতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, সিটি করপোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগের শীর্ষ ব্যক্তিদের পক্ষ থেকে এলাকার জনপ্রিতিনিধি, মসজিদের ইমাম এবং গণমান্য ব্যক্তিদের এডিস মশার ভয়াবহতা ও প্রতিকারের বিষয়ে উদ্বুদ্ধ করা হয়। তারাও নিজেদের বিভিন্ন সমস্যার কথা বলেন।

শুধু এই ধরনের সভার মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে প্রত্যেক এলাকায় এডিস মশার বিস্তার রোধে সাধারণ মানুষকে সচেতন করার পরামর্শ দেন।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 22 বার)


Print
bdsaradin24.com