ওষুধ উৎপাদনে ৪৮ দেশের মধ্যে শীর্ষে বাংলাদেশ

Print

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাংলাদেশে এখন ২৫৭ কোম্পানি ওষুধ উৎপাদন করে থাকে। এসব কোম্পানি প্রতিবছর ২৪ হাজার ব্র্যান্ডের ওষুধ উৎপাদন করে থাকে। এসব প্রতিষ্ঠানে দুই লক্ষাধিক মানুষ কাজ করে।

বাংলাদেশ রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) তথ্যানুযায়ী, বর্তমানে বছরে ২৫ হাজার কোটি টাকার ওষুধ দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে যাচ্ছে। আর এ রফতানির চিত্রও দ্রুত বাড়ছে। বিগত পাঁচ বছরে এ খাতে রফতানি বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে।

সংস্থাটির দেয়া তথ্যে জানা যায়, বাংলাদেশের ওষুধ সবচেয়ে বেশি রফতানি হচ্ছে মিয়ানমারে। দ্বিতীয় আমদানিকারক দেশ হলো শ্রীলঙ্কা। ২০১৭ সালে ৮ কোটি ডলারের বেশি ওষুধ রফতানি করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে আলাপকালে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) রুহুল আমিন জুমবাংলাকে বলেন, বর্তমানে বিশ্বের ১৬০ টি দেশে বাংলাদেশের ওষুধ রফতানি হচ্ছে। ওষুধ তৈরিতে যেসব কাঁচামাল প্রয়োজন হয় সেগুলো বর্তামনে আমরা আমদানি করে থাকি। তাই এখনও অবধি অতোটা মুনাফা হয়না। কিন্তু এ বিষয়ে সরকারের পরিকল্পনা রয়েছে। সে অনুযায়ী যেসব কাঁচামাল আমরা আমদানি করে থাকি তা আগামি ১০ বছরের মধ্যে নিজেদের দেশেই তৈরি করা হবে।

তখন বাংলাদেশের ওষুধ রফতানির চিত্র দেখে উন্নত বিশ্বের দেশগুলোও ঈর্ষা করবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এদিকে ইপিবি সূত্রে জানা গেছে , বর্তমানে ওষুধ রফতানিতে শীর্ষে রয়েছে বেক্সিমকো। বাংলাদেশের কার্ভিডিলোল নামের একটি ওষুধ আমেরিকায় রফতানির কর্ম আদেশ পেয়েছে। বর্তমানে হৃদযন্ত্রের ব্যাধি নিরাময়ে এই দুর্লভ ওষুধটি রফতানিতে কোনও বাধা নেই। এ অবস্থা চলতে থাকলে ওষুধ রফতানি বেড়ে দাঁড়াবে ৩০০ কোটি ডলারে।

বর্তমানে রফতানি বাণিজ্যে বাংলাদেশে আধিপত্য করছে পোশাক শিল্প। কিন্তু ভবিষ্যতে সে চিত্র পাল্টে যেতে পারে। ওষুধ রফতানি পোষাক খাতকেও ছাপিয়ে যাবে।

প্রসঙ্গত, ১৯৯২এ ইরাক, হংকং, ভিয়েতনাম, কোরিয়ায় পেনিসিলিন পাঠিয়ে চমক দিয়েছিলো বায়লাদেশ। এরপর সারাবিশ্বকে বাংলাদেশ চমকে দিয়েছিলো কম খরচে প্যারাসিটামল উৎপাদন করে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 2401 বার)


Print
bdsaradin24.com