কমছে না ক্রেডিট কার্ডের গলাকাটা চার্জ

Print

নীতিমালা সংশোধনের পরও ক্রেডিট কার্ডের গলাকাটা সার্ভিস চার্জ কমছে না। বরং নীতিমালার ফাঁকফোকর দিয়ে বাড়তি সুদ আদায় করা হচ্ছে গ্রাহকের কাছ থেকে। এর ফলে সুদহার কমাতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড নীতিমালা বাস্তবে কাজে আসছে না।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, গ্রাহকদের জন্য ক্রেডিট কার্ডের সার্ভিস চার্জ কমিয়ে আনার জন্য নীতিমালা জারি করেছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। ওই নীতিমালায় বলা হয়েছিল ব্যাংকগুলো ক্রেডিট কার্ড বাদে অন্য সেবাগুলোর মধ্যে যে সেবায় সর্বোচ্চ সুদ বা চার্জ আরোপ করা হয় তার চেয়ে ৫ শতাংশের বেশি মুনাফ বা চার্জ ক্রেডিট কার্ড থেকে আদায় করা যাবে না। যেমন, একটি ব্যাংক সর্বোচ্চ ১৮ শতাংশ সুদ আদায় করা হয় ভোক্তা ঋণের ক্ষেত্রে। এ ক্ষেত্রে ক্রেডিট কার্ডে সর্বোচ্চ ২৩ (১৮+৫) শতাংশের বেশি সুদ বা চার্জ আদায় করা যাবে না। গত ১ জানুয়ারি থেকে এ নীতিমালা পরিপালনের জন্য ব্যাংকগুলোকে নির্দেশ দেয়া হয়েছিল। কিন্তু শুরুতেই কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এ নির্দেশনা উপেক্ষিত থাকে। ফলে এর আগে ক্রেডিট কার্ড পরিচালনা করে এমন ৩২টি ব্যাংকের মধ্যে ১৮টিরই শোকজ করে বাংলাদেশ ব্যাংক। এরপরেই নড়েচড়ে বসে ব্যাংকগুলো। বাংলাদেশ ব্যাংকের নীতিমালার ফাঁকফোকর দিয়ে ২৮ থেকে ৩২ শতাংশ সার্ভিস চার্জ আদায় করছে কোনো কোনো ব্যাংক।

সংশ্লিষ্ট এক সূত্র জানিয়েছে, ব্যাংকগুলো ক্রেডিট কার্ড থেকে বাড়তি সুদ আদায় করার জন্য ভিন্ন কৌশল অবলম্বন করছে। যেমন, বাংলাদেশ ব্যাংকের নীতিমালায় বলা হয়েছে, ক্রেডিট কার্ড বাদে অন্য যেসব সেবায় সর্বোচ্চ সুদ আদায় করা হয় তার থেকে ৫ শতাংশ যুক্ত হবে ক্রেডিট কার্ডের ক্ষেত্রে। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে কোনো সীমা বেঁধে দেয়নি। এ কারণে ব্যাংকগুলো এ সুযোগটি নিচ্ছে। একটি অপ্রচলিত সেবা চালু করা হচ্ছে। যার সুদহার নির্ধারণ করা হচ্ছে ২০ থেকে ২৫। এ সেবা থেকে ঋণ বিতরণও করা হচ্ছে না। অথচ ওই সেবাকে সর্বোচ্চ ভিত্তি ধরে এর সাথে ৫ শতাংশ যুক্ত করে ক্রেডিট কার্ডের সুদহার নির্ধারণ করা হচ্ছে। যেমন, কোনো ব্যাংকের এমন একটি সেবার সুদহার ২৫ শতাংশ নির্ধারণ করলে আর এর সাথে ৫ শতাংশ যুক্ত করে ৩০ শতাংশ ক্রেডিট কার্ডের সুদহার নির্ধারণ করলে বাংলাদেশ ব্যাংকের নীতিমালা লঙ্ঘন হচ্ছে না। ব্যাংকও অতিরিক্ত সার্ভিস চার্জ আদায় করতে পারছে নির্বিঘেœ। এভাবেই নীতিমালার ফাঁক দিয়ে বাড়তি অর্থ আদায় করছে সাধারণ গ্রাহকের কাছ থেকে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 39 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com