কর্ণফুলীর বুকে ফোঁড় কাটছে বঙ্গবন্ধু টানেল

Print

যেখানে দিন নেই, সেখানে রাতের পার্থক্যও নেই। ঠিক তেমন-ই এক জগতের সৃষ্টি হয়েছে কর্ণফুলীর তলদেশে। স্রোতস্বিনীর বুকে এখন রাজ্যের ব্যস্ততা। ঘুচে গেছে দিন-রাতের পার্থক্য। গত ছয় মাসের খনন শেষে কর্ণফুলীর তলদেশে পৌঁছে গেছে টানেল বোরিং মেশিন (টিবিএম)। প্রতি মুহূর্তে ফোঁড় কাটছে কর্ণফুলীর বুকে। ওই গভীরে কী কর্মযজ্ঞ চলছে তা কি আঁচ করতে পারছেন কর্ণফুলীর হাজার বছরের সঙ্গী সাম্পানওয়ালা, জেলে আর মাঝি-মাল্লারা?

চলতি বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খনন কাজ উদ্বোধনের পর গত ছয় মাসে বঙ্গবন্ধু টানেল (কর্ণফুলী টানেল) এগিয়েছে ৩৬০ মিটার। যা মূল টানেলের খনন কাজের ১৪ দশমিক ৬৯ শতাংশ। তবে প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের দাবি, ভৌত অবকাঠামোসহ প্রকল্পের ৪৫ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে।

ভৌত অবকাঠামোসহ প্রকল্পের ৪৫ শতাংশ কাজ সম্পন্ন

শুক্রবার (২৩ আগস্ট) দুপুরে টানেল প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী হারুনুর রশিদ চৌধুরী জাগো নিউজকে বলেন, ‘এখন পর্যন্ত টানেলের ৩৬০ মিটার অংশের খনন কাজ শেষ হয়েছে। টানেলের মোট দৈর্ঘ্য ৩ দশমিক ৪ কিলোমিটার বা ৩ হাজার ৪০০ মিটার। এর মধ্যে টিউবের দৈর্ঘ্য হবে ২ হাজার ৪৫০ মিটার।’

কর্ণফুলী নদীর তলদেশে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় টানেল বোরিং মেশিন (টিবিএম) দিয়ে চলছে খননের মূল কাজ। প্রায় তিনতলা বাড়ির সমান উঁচু দৈত্যাকৃতির এ টিবিএম কর্ণফুলীর পতেঙ্গা পয়েন্ট থেকে মাটি কেটে কেটে এগিয়ে যাচ্ছে আনোয়ারা পয়েন্টের দিকে। টানেল বোরিং মেশিনটি কোনো কোনো পয়েন্টে নদীর তলদেশের মাটি থেকেও ১৪০ ফুট গভীর পর্যন্ত পাতালে ঢুকবে, যার মধ্য দিয়ে তৈরি হবে সুড়ঙ্গ পথ। মেশিনটি নদীর উত্তরপ্রান্ত থেকে পথ কাটা শুরু করেছে, বের হবে দক্ষিণপ্রান্ত দিয়ে।

প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, এখন পর্যন্ত ভৌত অবকাঠামো তৈরিসহ প্রকল্পের মোট ৪৫ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। গত ছয় মাসে মোট কাজ এগিয়েছে ১৪ শতাংশ। এর আগে সেতু বিভাগের সিনিয়র সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জাগো নিউজকে জানিয়েছিলেন, ফেব্রুয়ারিতে টানেলের খনন কাজ শুরুর আগেই তারা প্রকল্পের প্রায় ৩২ শতাংশ কাজ শেষ করতে সক্ষম হয়েছিলেন।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 36 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com