কলারোয়ায় যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়ক এখন মরণ ফাঁদ

Print

মোঃ ইমরান সরদার,কলারোয়া(সাতক্ষীরা)প্রতিনিধি: বৃষ্টি হলেই সাতক্ষীরার কলারোয়া পৌরসদরের প্রধান মহাসড়কের বেহাল দশায় নাস্তানাবুদ হচ্ছেন পথচারীরা। উপজেলা সদরের বুকচিড়ে যাওয়া যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়কটির কয়েকটি স্থানে পিচ-পাথর-খোয়া উঠে রীতিমত গর্তে রূপ নিয়েছে। সেখানে কাদাপানি আর ছোটছোট পাথরকুচিতে চলাচলে সীমাহীন সমস্যার মুখে পড়ছেন পথচারীরা। মহাসড়ক যেনো মহাবিপদে রূপ নিয়েছে। পানির নিচে গর্ত দেখা না যাওয়ায় ভোগান্তি আর দূর্ভোগে পতিত হচ্ছেন ভূক্তভোগিরা।

চলমান বৃষ্টি শুরুর অনেক আগেই রাস্তার ওই সকল স্থান অনুপযোগি হয়ে পড়লেও সংশ্লিষ্টরা কার্যকর ব্যবস্থা না নেয়ায় জনদুর্ভোগ আরো বেড়েছে। মহাসড়কের পাশাপাশি পৌর সদরের বিভিন্ন সড়কেরও একই রকম অবস্থা দেখা যাচ্ছে। উপজেলা সদরের কলারোয়া বাসস্ট্যান্ড, হাইস্কুল মোড়, রুচিরা বেকারির সামনে, থানার সমানে, যুগিবাড়ি এলাকার যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়ক এবং পৌরসভাধীন মহেন্দ্র স্ট্যান্ড থেকে শুরু করে হাসপাতাল রোডের বেশ কয়েকটি স্থান, পাকা ব্রিজ থেকে মির্জাপুর ও বেত্রবতী হাইস্কুল মোড় এলাকা পর্যন্ত রাস্তার করুণ দশায় নাজেহাল এলাকাবাসী ও পথচারী। রাস্তাগুলোর বহু স্থানে গর্ত ও খানাখন্দে পরিণত হয়ে ঘটছে দূর্ঘটনাও। এলাকার জনসাধারণ ও পথচারীদের প্রশ্ন-আর কবে হবে এই রাস্তার সংস্কার ? কবে ভোগান্তি থেকে পাবে মুক্তি ? তারা অবিলম্বে রাস্তা সংষ্কার করে জনভোগান্তি থেকে রেহাই দিতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

কলারোয়ায় আসন্ন দূর্গোৎসব উপলক্ষ্যে গ্রামপুলিশের ব্রিফিং জুলফিকার আলী,কলারোয়া(সাতক্ষীরা)প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার কলারোয়ায় আসন্ন শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষ্যে উপজেলাব্যাপি শান্তিশৃংখলা সমুন্নত রাখতে গ্রামপুলিশদের নিদের্শনা দিয়েছেন থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ মুনীর-উল-গীয়াস।

শুক্রবার সকালে থানা চত্বরে গ্রামপুলিশদের এক ব্রিফিং অনুষ্ঠানে উপজেলার সকল দূর্গামন্ডপে ও আশপাশের এলাকায় সার্বিক শান্তি রক্ষায় বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ মুনীর-উল-গীয়াস বলেন-শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষ্যে নিজ নিজ এলাকায় আইনশৃংঙ্খলা রক্ষার্থে সজাগ থাকতে হবে।

সন্দেহজনক কাউকে দেখলে তাৎক্ষনিক পুলিশকে অবহিত করতে হবে। ব্রিফিংকালে উপজেলার সকল ইউনিয়নের গ্রামপুলিশের পাশাপাশি থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোহা. রাজিব হোসেন, সেকেন্ড অফিসার রাজ কিশোরসহ পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। আগামি ৪ অক্টোবর থেকে দূর্গাপূজা উৎসব শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। এবার পৌরসদর ও উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের ৪২টি পূজা মন্ডপে দুর্গাপূজা আয়োজন করা হচ্ছে বলে প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 42 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com