‘কাউয়া মুক্ত আওয়ামী লীগ চাই’ ছবি ভাইরাল

Print

রাজধানীর ধানমন্ডি ২৭। শংকর আবাসিক এলাকার বিক্রমপুর মিষ্টি দোকানের সামনে ৩০ ফুটেরও অধিক দৈর্ঘ্যের বিশাল একটি বিলবোর্ড। বিলবোর্ডে লেখা, ‘দাড় কাউয়া মুক্ত মোহাম্মপুর থানা আওয়ামী লীগ চাই।’  লেখাটির ডানপাশেই বিশাল একটি দাড় কাকের ছবি আর মোহাম্মপুর বলতে মোহাম্মদপুর থানাকে বোঝানো হয়েছে।

বিলবোর্ডের ছবিটি শনিবার সকাল থেকে ভাইরাল হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে।

আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে ‘কাউয়া’ শব্দটি জনপ্রিয় করেছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গেল বছরের মার্চে সিলেটে বিভাগীয় তৃণমূল সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ মন্তব্য করেন যে, সংগঠনে ‘কাউয়া’ (কাক) ঢুকছে । তিনি বলেন, ‘প্রচার লীগ, তরুণ লীগ, কর্মজীবী লীগ, ডিজিটাল লীগ, হাইব্রিড লীগ আছে। কথা হাছা, সংগঠনে কাউয়া ঢুকছে। জায়গায় জায়গায় কাউয়া আছে। পেশাহীন পেশিজীবী দরকার নেই। ঘরের ভেতর ঘর বানানো চলবে না। মশারির ভেতর মশারি টানানো চলবে না।’

ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে ‘দাড় কাউয়া মুক্ত মোহাম্মদপুর থানা আওয়ামী লীগ চাই’ লেখা সম্বলিত একটি বিলবোর্ড। শনিবার বিলবোর্ডটির ছবি ফেসবুকে শেয়ার করে এফ এম শাহীন লেখেন:- দারুণ আইডিয়া–হাহাহাহাহা।

এরপর আনোয়ার হোসেন, বদরুল আলম মজুমদারসহ অনেকেই ছবিটি নিজের ফেসবুক ওয়ালে শেয়ার করেন। ফেসবুকে এমন ছবি ছড়িয়ে পড়ার পর আলোচনায় এসেছে ‘কাউয়া’।গত বছর সিলেটে আওয়ামী লীগের এক কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছিলেন, ‘আওয়ামী লীগে কাউয়া ঢুকে গেছে।’

এরপর থেকে তার দেয়া উপাধি অনুযায়ী দলে অনুপ্রবেশকারীদের ‘কাউয়া’ বলে অভিহত করেন দলের ত্যাগী নেতারা। দলের তৃণমূল মনে করে, দলের মধ্যে যেসব অনুপ্রবেশকারী ঢুকে থাকে, এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট জরিপ হওয়া প্রয়োজন।

মূলত কাউয়া বলতে ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর বিএনপি-জামায়াত, বিভিন্ন বাম দল এবং জাতীয় পার্টি থেকে দলে এসে দীর্ঘ দশ বছরে তাদের বিপুল অর্থ ভাণ্ডার তৈরি করেছেন তাদের বুঝে থাকে আওয়ামী লীগের কর্মীরা। কাউয়াদের নিয়ে তাদের মনে ব্যপক্ষ ক্ষোভও বিদ্যমান। তাই ওবায়দুল কাদেরের মন্তব্যের পর আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতা-কর্মীদের মাঝে কাউয়া শব্দটি জনপ্রিয় হয়ে উঠে। এরপর ‘কাউয়া’দের প্রতিহত করতে তাই তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা রাজপথে ও সামাজিক মাধ্যমে বরাবর সোচ্চার রয়েছে।

স্থানীয় ব্যবসায়ী রিয়াজ আহমেদ বাবু বলেন, শনিবার সকাল বেলাই ধানমন্ডির ওই সড়কে বিলবোর্ডটি দেখতে পাই। কে বা কারা এই বিলবোর্ড তৈরী করেছে সেটা নিশ্চিত নই । তবে এটা জনগনের মধ্যে ব্যপক সাড়া ফেলেছে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 139 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com