কেন্দুয়ায় শাশুড়ীর মামলায় স্ত্রীর জবানবন্দীতে স্বামী নির্দোষ

Print

 

মাঈন উদ্দিন সরকার রয়েলঃ
নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলায় শাশুড়ীর মামলায় স্ত্রীর জবানবন্দীতে স্বামী নির্দোষ হওয়ার ঘটনা ঘটেছে । নিজ মেয়ের জামাতার বিরুদ্ধে শাশুড়ীর দায়ের করা মামলায় মেয়ের জবানবন্দীতেই মেয়ের জামাতা নির্দোষ প্রমাণিত হয়েছে । জেলার বিজ্ঞ আদালতে ৩৭তম বিসিএসে উত্তীর্ণ,কেন্দুয়ার নব বিবাহিত তাসলিমা সুলতানা সিনথিয়ার দেওয়া জবানবন্দীর প্রেক্ষিতে-সিনথিয়া ও রাতুলের শ্বাশত প্রেম পরিণয়ের জয় হয়েছে ।
জানা গেছে- গত ১১ আগস্ট সিনথিয়ার সঙ্গে নেত্রকোনার কেন্দুয়া পৌরসভার প্রথম মেয়র প্রয়াত আব্দুল হক ভূঞার ছোট ছেলে রাতুল হাসান বাবুর রেজিষ্ট্রি কাবিনমূলে বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের ১ মাস ৯ দিন পর সিনথিয়াকে অপহরণের অভিযোগ এনে গত ১৯ সেপ্টেম্বর কেন্দুয়া থানায় একটি অপহরণ মামলা করেন তার মা রাজিয়া সুলতানা।
মামলার পর কেন্দুয়া পৌরসভার মেয়র মো: আসাদুল হক ভূঞা গত বৃহস্পতিবার বলেন, সিনথিয়ার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরেই রাতুল হাসান বাবুর প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। সম্পর্ককে প্রতিষ্ঠিত করতেই প্রাপ্ত বয়স্ক ছেলেমেয়ে চলতি বছরের ১১ আগস্ট ৩৬১ এ্যালিফেন্ট রোড নিউ মার্কেট ঢাকা-১২০৫ কাজী মো: বিল্লাল হোছাইনের অফিসে ৩ লাখ টাকার দেন মোহরে বিয়ে করেন। বিয়ের পর সিনথিয়া তার বাবার বাড়িতে যায়।
তিনি আরও জানান, সামাজিক আচার অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সিনথিয়াকে বধূ হিসেবে বরণ করতে সিনথিয়ার মামা আশরাফ উদ্দিন ভূঞার সঙ্গে আলোচনা চলছিল। এছাড়া রাতুলে মাসহ আরও কয়েকজন মুরুব্বি সিনথিয়ার বাবা-মার কাছে গিয়ে সামাজিক আচার অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বধূ বরণের প্রস্তাব দেন। কিন্তু সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে অপহরণ মামলা দায়ের করেন সিনথিয়ার মা।
সোমবার মেয়র আসাদুল হক ভূঞা বলেন, আমাদের পরিবারকে সামাজিকভাবে হেয় করার জন্য এ মামলা দায়ের করা হয়। কিন্তু সিনথিয়া নিজেই আদালতে উপস্থিত হয়ে নিজের মতামত আদালতকে জানিয়েছে। আদালতে সিনথিয়া বলেছে, নিজের ইচ্ছাতেই রাতুল হাসান বাবুর সঙ্গে বিয়ে হয়েছে। তাকে কেউ অপহরণ করেনি। বিচারক তার বক্তব্য গ্রহণের পর তার নিজের জিম্মাতেই তাকে দিয়েছেন।
কেন্দুয়া থানার ওসি ইমারত হোসেন গাজী বলেন, তাসলিমা সুলতানা সিনথিয়া আদালতে তার বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন । আদালতে দেওয়া তার বক্তব্যের কপি আমরা হাতে পেয়েছি । তবে আদালত তাকে তার নিজের জিম্মায় নিজ বাড়িতে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন । তাসলিমা সুলতানা সিনথিয়ার বরাত দিয়ে ওসি ইমারত হোসেন গাজী আরও বলেছেন-সোমবার নেত্রকোনার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে সিনথিয়া তার জবানবন্দীতে বলেছেন-আমি ৩৭ তম বিসিএসে ক্যাডার ভুক্ত হয়েছি । রাতুলের সঙ্গে আমার প্রেমের সম্পর্ক ছিল ।আমরা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছি । আমাকে কেউ অপহরণ করেনি । এই আমার জবানবন্দী।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 261 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com