কেন্দুয়ায় সেরা উপস্থাপন ও ব্যবস্থাপনায় প্রথম হয়েছে মৎস কর্মকর্তার স্টল

Print

মাঈন উদ্দিন সরকার রয়েলঃ কেন্দুয়ায় তিনদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া জাতীয় ৪র্থ উন্নয়ন মেলায় সেরা উপস্থাপন ও ব্যবস্থাপনায় প্রথম স্থান অর্জন করে প্রথম পুরস্কার পেয়েছে সিনিয়র কেন্দুয়া উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তার স্টল । উন্নয়ন মেলার সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে কেন্দুয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হাত থেকে ১ম স্থানের পুরস্কার গ্রহণ করেন এসইউএফও মুহাম্মদ দেলোয়ার হোসাইন ও অন্যান্য কর্মকর্তারা ।
সরেজমিনে দেখা গেছে-উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় অদম্য বাংলাদেশ শ্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে কেন্দুয়ায় অনুষ্ঠিত জাতীয় উন্নয়ন মেলার ৩৫ নং স্টল সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার স্টলে প্রদর্শিত হয়-পুকুর প্রস্তুতিমূলক বিভিন্ন উপকরণের মধ্যে ব্লিচিং পাউডার, জিপসাম, চুন, ইউরিয়া, টিএসপি, এমওপি, সারস, ছিটাগুড়, ইস্ট লবণ,ভিটামিন,বিভিন্ন ধরনের শুটকি, খৈল, কুড়া,ভূসিসহ নানা ধরনের মৎস্য খাদ্য কৌটায় ভরে সাজানো উপকরণ ছিল ।
তাছাড়া বৈয়ামে সাজানো বিশেষ ধরনের মাছের পোনা যেমন শোল, টেংরা,গোলসা, পাবদা, খলিসাসহ এ্যাকুরিয়ামে নানান বাহারী মাছ ছিল । পানি পরীক্ষার জন্য কিটবক্স ছিল । সেখানে দশজন চাষীর পানি পরীক্ষা করা হয় । গত তিনদিনে স্টলে বসে ৩৫ জন চাষীকে উপস্থিতভাবে বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ প্রদান করা হয় ।
বর্তমান সরকারের সময়ে কেন্দুয়া উপজেলায় অর্জিত মৎস্য সেক্টওে বিভিন্ন কার্যক্রমের বড় বোর্ডে লেখে থা টাঙ্গিয়ে রাখা হয় । মৎস্য বিভাগীয় বিভিন্ন ধরনের রঙ্গিন ফেস্টুন, সিটিজেন চার্টার,ভিডিও প্রদর্শনীর জন্য লেপটপসহ বড়পর্দা,শষ্য বিভাগীয় বিভিন্ন পোস্টাওে সাজানো ছিল এ মৎস্য স্টল টি । স্টলের সামনে সুন্দর একটি মাছের নমুনা অভয়াশ্রম ছিল;সাথে আদর্শ পুকুরের একটি নমুনা পুকুর ছিল । সার্বিক বিবেচনায় স্টলটি ছিল বর্ণাঢ্য ও উপভোগ্য এবং আকষর্ণীয় ।
এ ব্যাপারে সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মুহাম্মদ দেলোয়ার হোসাইন বলেন-বর্তমান সরকারের অত্যন্ত সহায়ক কর্মকান্ডের ফলে সারাদেশের মত কেন্দুয়াতে আমরা মৎস্য উৎপাদনে ব্যাপক সাফল্য অর্জন করেছি । বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার আগে -যেখানে এই এলাকায় মাছের উৎপাদন ৪ হাজার মে:টনের নীচে ছিল । সেখানে বর্তমানে কেন্দুয়ায় মাছের উৎপাদন ৭৭৫৬.১৩ মে:টন হয়েছে । যা পূর্বের উৎপাদনের প্রায় দ্বিগুন । যার ফলে কেন্দুয়ায় মাছের চাহিদার চেয়ে ২৪৩.৯৫ মে:টন অতিরিক্ত মাছ উৎপাদনে সক্ষম হয়েছি ।
তিনি আরও বলেন-বর্তমান সরকার মৎস্য বান্ধব হওয়ায় চাষীদের শিক্ষণ,প্রদর্শনী চাষ,জলাশয় সংস্কারসহ অনেক কাজ হয়েছে । যার ফলে এই এলাকায় মাছ উৎপাদন প্রায় দ্বিগুন বেড়েছে ।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 220 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com