খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের ভয়াবহ অবনতি, বললেন মির্জা ফখরুল

Print

খালেদা জিয়ার ৩টা দাঁত ক্ষয় হয়ে গেছে। এই কারণে কষ্ট হচ্ছে। জরুরি ভিত্তিতে তার দাঁতের চিকিৎসা প্রয়োজন। কয়েকটি দাঁত ফেলেও দিতে হবে। খালেদা জিয়ার শরীরে ওজন কমে গেছে। গত এক সপ্তাহে ৪ কেজি ওজন কমে গেছে। এটি একটি সর্তকবার্তা। এখন আপনার খালেদা জিয়াকে দেখলে চিনতে পারবেন না। তিনি কিছুই খেতে পারছেন না। গত এক সপ্তাহে তার ডায়াবেটিস ১৮-২০-এর নিচে নামছে না। ইনসুলিন ব্যবহারের পরেও তা নিয়ন্ত্রণে আসছে না। সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। একই সঙ্গে তিনি বলেন, যেহেতু স্বাস্থ্যের অবনতি হচ্ছে এজন্য তাকে তার পছন্দ অনুযায়ী চিকিৎসার সুযোগ দেয়া উচিত। অবিলন্বে তাকে মুক্তি দিয়ে তার পছন্দ অনুযায়ী দেশে অথবা বিদেশে যেখানে তিনি চিকিৎসা করতে চান, সেখানেই তার চিকিৎসা ব্যবস্থা করার জোর দাবি জানান বিএনপি মহাসচিব।

শুক্রবার বিকালে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল বলেন, গত ১৭ মাসে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ভয়াবহ অবনতি হয়েছে। আপনারা দেখেছেন, গত বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি তিনি কারাগারে যাওয়া সময় অত্যন্ত সুস্থ অবস্থায় পায়ে হেঁটে গেছেন। এখন তিনি হুইলচেয়ার ছাড়া চলাফেরা করতে পারছেন না। প্রকৃত অবস্থা আরো ভয়াবহ। তিনি এখন বিছানা থেকে নিজে উঠতে পারেন না। তাকে দুইজন হেলফ করে উঠাতে হয় এবং হুইল চেয়ারে বসিয়ে তাকে টয়লেটে, ওয়াসরুমে বা খাবার টেবিলে নিতে হয়। আবার দ্‘ুজনের সাহায্য নিয়েই তাকে শোয়া বা বিছানায় নিতে হয়।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, এটা অমানবিক। এটা আমরা কিছুতেই মেনে নিতে পারি না যে একজন সাবেক প্র্রধানমন্ত্রী যিনি গণতন্ত্রের জন্য দীর্ঘ সংগ্রাম করেছেন,লড়াই করেছেন, যে দুইবার বিরোধী দলের নেতা ছিলেন। যার স্বামী স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছেন এবং যিনি নিজে পাকিস্তান সেনা বাহিনীর হাতে বন্দি ছিলেন তার দুই সন্তানসহ। আজকে চরম অমানবিক আচরণ তার সঙ্গে করা হচ্ছে। একজন প্রথম শ্রেনীর প্রাপ্ত কয়েদীর সঙ্গে যে আচরণ করা হয় তার সঙ্গে তার চেয়েও খারাপ আচরণ করা হচ্ছে।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, তাকে এ্রখন সঠিক মতো তার যে খাওয়া সেগুলো ঠিকভাবে দেয়া হয় না। তার যে সমস্ত ফল-মূল যেগুলো খাওয়া উচিত সেগুলো তিনি ঠিক মতো পান না। সবচেয়ে বড় হচ্ছে তার চিকিৎসা। এটা কোনো মতেই এখানে(বিএসএমএমইউ) সম্ভব হচ্ছে না।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 55 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com