জাবিতে পাবলিক হেলথের পর এবার র‌্যাগিংয়ের ঘটনা সাংবাদিকতা বিভাগে

Print
মোঃ রায়হান চৌধুরী, জাবি প্রতিনিধি :
পাবলিক হেলথ এন্ড ইনফরমেটিক্স বিভাগের পর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্বিদ্যালয়ে আবারো নতুন করে র‌্যাগিংয়ের ঘটনা ঘটেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে সোমবার রাত ৮ টায় সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যায়ন বিভাগের ৪৮ তম ব্যাচের নবীন শিক্ষার্থীদেরকে র‌্যাগিং করে একই বিভাগের ৪৭ তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা।
র‌্যাগিংয়ের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সালাম বরকত হলের আবাসিক শিক্ষার্থী হারুনুর রশিদ, বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের এনামুল হক তামীম, মওলানা ভাসানী হলের রাইসুল ইসলাম রাজু, তাওসিফ আব্দুল্লাহ, স্টিব সলগা রেমা, জাকির হোসেন জীবন, মাহবুবুর রহমান, বেগম খালেদা জিয়া হলের সারা বিনতে সালাহ, প্রীতিলতা হলের সায়মা লিমা, ফাবিয়া বিনতে হক সহ ১২-১৩ জন জড়িত ছিলেন বলে জানা গেছে।
এদের মধ্যে জাকির হোসেন জীবন সময়ের আলো পত্রিকার বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি বলে জানা যায়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বিভাগের পক্ষ থেকে আয়োজিত ক্রিকেট মাচে খেলা দেখতে নবীন শিক্ষার্থীরা সবাই উপস্থিত না হওয়ায় দ্বিতীয় বর্ষের কয়েকজন শিক্ষার্থী তাদের উপর ক্ষুব্ধ হয়। পরে রাত ৮ টায় প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদেরকে ম্যানার শিখানোর জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মাঠে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন করা হয়।
ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা জানায়, সোমবার বিভাগের আয়োজনে ক্রিকেট টুর্নামেন্ট হলে খেলা দেখার জন্য প্রথম বর্ষের সকল শিক্ষার্থীকে মাঠে থাকতে বলে বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা। কিন্তু প্রথম বর্ষের ৪০ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ২০-২৫ জন শিক্ষার্থী মাঠে যায়। সবাই মাঠে উপস্থিত না থাকায় রাত ৮ টায় তাদেরকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে নিয়ে যায় দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা। এসময় তারা নবীন শিক্ষার্থীদের অকথ্য ভাষায় গলিগালাজ, কান ধরে দাড় করিয়ে রাখা, হাত পা মুড়িয়ে বসিয়ে (মুরগি করে) রাখা সহ বিভিন্ন ধরনের শাস্তি দেয়। এক পর্যায়ে দ্বিতীয় বর্ষের রাইসুল ইসলাম রাজু উত্তেজিত হয়ে এক নবীন শিক্ষার্থীর গায়ে জুতা নিক্ষেপ করে। এছাড়া অনেক শিক্ষার্থীকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয় বলেও তারা অভিযোগ করেন। এদিকে র‌্যাগিং করার পর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে কোন বিষয়ে অভিযোগ করতে নিষেধ করে রাত পৌনে ১০ টার দিকে দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা সেখান থেকে চলে যায়।
র‌্যাগিংয়ের খবর পেয়ে রাত ১০ টায় ঘটনাস্থলে যান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও সহযোগী অধ্যাপক আ.স.ম ফিরোজ-উল-হাসান। এ সময় প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীরা প্রক্টরের কাছে ঘটনা বর্ণনা করে মৌখিকভাবে অভিযোগ দেন।
এ বিষয়ে বিশ্বদ্যিালয়ের প্রক্টর আ.স.ম ফিরোজ উল হাসান বলেন, ‘রাত ১০ টার দিকে খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গেলে কাউকে পাওয়া যায়নি। তবে নবীন শিক্ষার্থীদেরকে কান ধরে উঠবস করানো, জুতা ছুড়ে মারা, অশ্লীল ভাষায় গালাগালি করা সহ শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হয়েছে। আমরা অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।’
এ প্রসঙ্গে সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যায়ন বিভাগের সভাপতি সহযোগী অধ্যাপক শেখ আদনান ফাহাদ বলেন, ‘আমরা শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলেছি। র‌্যাগিংয়ের ঘটনার সত্যতা রয়েছে। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত তারা লিখিত কোন কিছু দেয়নি।’ তিনি আরো বলেন, ’আমরা কেন্দ্রীয় প্রশাসন কে জানিয়েছি যে, এ বিষয়ে আমদের বিভাগে তাদেরকে যে কোন সাহায্য সহযোগিতা করবে’।
তবে অভিযুক্তদের মধ্যে জাকির হোসেন জীবন, রাইসুল ইসলাম রাজু সহ কয়েকজনের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তারা কেউই কল রিসিভ করেননি।
প্রসঙ্গত, এর আগে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৩টার দিকে জাহাঙ্গীরনগর স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে পাবলিক হেলথ অ্যান্ড ইনফরমেটিক্স বিভাগের ৪৮তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের র‌্যাগ দিচ্ছিলেন একই বিভাগের ৪৭তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। পরে খবর পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল টিম ঘটনাস্থলে গেলে ৪৭তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা মোটরসাইকেলে করে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় প্রক্টরের কাছে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা।
পরে এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জরুরি সিন্ডিকেট সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পাবলিক হেলথ অ্যান্ড ইনফরমেটিক্স বিভাগের ৪৭তম ব্যাচের জাহানারা ইমাম হলের আবাসিক শিক্ষার্থী কিফায়াত সাদমান ইশাদি ও রুবাইয়া বিনতে হাশেম, বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের আবাসিক শিক্ষার্থী অংকন ভদ্র, সাইফুর রহমান সরকার ও নাজ্জাশি সুলতান, মওলানা ভাসানী হলের আবাসিক শিক্ষার্থী রাকিব হোসেন ও তানভীর আহমেদ শুভ সহ মোট ৭ শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।
[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 130 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com