জাবির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অফিসে আগুন; অনিরাপদ প্রতিটি ভবন

Print
মোঃ রায়হান চৌধুরী, জাবি প্রতিনিধি :
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অফিসে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে। এতে কোন ধরনের হতাহত বা ক্ষয়ক্ষতি না হলেও আতঙ্ক বিরাজ করছিল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে।
মঙ্গলবার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অফিসের নিচতলায় বিদ্যুৎ লাইনের মেইন সুইচে শটসার্কিট থেকে এ অগ্নিকান্ডের দুর্ঘটনা ঘটে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অফিসে আগুন নেভানোর প্রয়োজনীয় কোন সরঞ্জামাদি নেই। ফলে যে কোন সময় আগুন লাগার দুর্ঘটনা ঘটলে আগুন নেভানোর জন্য তাৎক্ষণিকভাবে কোন ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব হবে না।
পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অফিসের পরিচালক অধ্যাপক ড. অসিত বরণ পাল বলেন, ‘আমরা অতি শিঘ্রই অগ্নিনির্বাপণ সরঞ্জামের ব্যবস্থা করবো। টেকনিশিয়ানের মাধ্যমে সমস্ত লাইন চেক করাবো যাতে ভবিষ্যতে এ ধরনের কোন ঘটনা না ঘটে।’
বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ বলেন, ‘আমরা বিষয়টা অবগত হয়েছি। পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল গুরুত্বপূর্ণ ভবনে আগুন নেভানোর সরঞ্জামের ব্যবস্থা করা হবে।’
এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের এস্টেট শাখা সূত্রে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ে অভ্যন্তরে মোট ভবন রয়েছে ১২৭টি। এর মধ্যে ১৬টি আবাসিক হল, ১০টি একাডেমিক ভবন, দুটি প্রশাসনিক ভবন, একটি করে মেডিকেল সেন্টার, ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র, মিলনায়তন, ক্যাফেটেরিয়া, পরিবহন অফিস, ব্যায়ামাগার, গবেষণা কেন্দ্র ও কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার। এছাড়া উপাচার্য, উপ-উপাচার্য ও কোষাধ্যক্ষের বাসভবনসহ শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য প্রায় ৯২টি আবাসিক ভবন রয়েছে। কিন্তু এসব ভবনের কোনটিতে অগ্নি নির্বাপণের ব্যবস্থা নেই। এছাড়া তাৎক্ষণিক দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে নেই ফায়ার সার্ভিস ব্যবস্থাও।
বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত বিভাগগুলোর গবেষণাগারে বিভিন্ন দাহ্য পদার্থ ব্যবহার করা হয়। একটু অসতর্ক হলেই, মারাত্মক দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে। গবেষণাগারে আগুন নেভানোর কোনো ব্যবস্থা নেই। ফলে ঝুঁকি নিয়েই শিক্ষার্থীদের গবেষণাগারে কাজ করতে হয়।
অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোতে প্রায় প্রতিটি কক্ষে শিক্ষার্থীদের বৈদ্যুতিক হিটার ব্যবহারসহ বৈদ্যুতিক অব্যবস্থাপনার কারণে শর্ট সার্কিট সহ যে কোন ভাবে ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। ফলে অগ্নি ঝুঁকিতে রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সবকটি ভবন।
এ বিষয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছি। আমাদের কাজের জায়গার নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা প্রশাসনের দায়িত্ব। কিন্তু তারা তাদের দায়িত্বের প্রতি উদাসীন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অফিস সূত্রে জানানো হয়, পুরাতন ভবনগুলোতে অগ্নিনির্বাপণের ব্যবস্থা না থাকলেও পরিকল্পিত নতুন ভবনগুলোতে এ ব্যবস্থা থাকবে।
[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 43 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com