ঝিকরগাছায় গ্রাম পুলিশ নিয়োগে অনিয়ম: ইউএনও’র কাছে গ্রামবাসীর লিখিত অভিযোগ

Print

মোঃ রাসেল ইসলাম,যশোর ব্যুরো প্রধান: যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদের আওতায় ১০নং শংকরপুর ইউনিয়নে ০৫জন গ্রাম পুলিশ নিয়োগ দেওয়ার হবে। এই নিয়োগের বিষয়ে ১০নং শংকরপুর ইউনিয়নে ইউপি সদস্যরা তাদেরকে প্যানেল চেয়ারম্যান দাবি করে নিয়োগ প্রত্যাশীদের নিকট থেকে চাকরী দেওয়ার কথা বলে অনিয়মে টাকা আদায় করেছে বলে একাধিক অভিযোগ হওয়ার কারণে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সুমী মজুমদারের নিকট লিখিত অভিযোগ দিয়েছে গ্রামবাসী।

নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ে এলাকাবাসী ও নিয়োগ প্রত্যাশী সূত্রে জানা গেছে, ঝিকরগাছা উপজেলার ১০নং শংকরপুর ইউনিয়নে ০৫জন গ্রাম্যপুলিশ নিয়োগ দেওয়ার কথা বলে এবং নিজেদেরকে প্যানেল চেয়ারম্যান দাবি করে প্রার্থীদের নিকট থেকে ১ লক্ষ ৪৯ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে। যার মধ্যে নিয়োগ প্রত্যাশী ১০নং শংকরপুর ইউনিয়নের আলী হোসেন পিতা মোহাম্মদ আলীর ছেলে নিকট থেকে ২নং ওয়ার্ড মেম্বার অজিয়ার রহমান নগত ২৫ হাজার টাকা গ্রহণ করেন।

আলি হোসেনের ছেলের ইকবল হোসেনের নিকট থেকে ১নং ওয়ার্ড মেম্বর আহসান হাব্বি ৬৫ হাজার টাকা গ্রহণ করেছে বলে অভিয়োগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে মেম্বর আহসান হাব্বি’র সাথে যোগাযোগ করলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। একই ইউনিয়নের অজিত চন্দ্র দাসের ছেলে হরিদাস কুমারের নিকট থেকে ৩নং ওয়ার্ড মেম্বর বজলুর রহমান ১৯ হাজার ৫শত টাকা গ্রহণ করেছে বলে অভিয়োগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে মেম্বর বজলুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। একই ইউনিয়নের আঃ মুজিতের ছেলে ওমর ফারুকের নিকট থেকে ইউনিয়নের চৌকিদার সাধন ২৫ হাজার টাকা গ্রহণ করেছে বলে অভিয়োগ পাওয়া গেছে।

এই বিষয়ে চৌকিদার সাধনের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ওমর ফারুকের টাকা আমার সামনে ৪নং ওয়ার্ডের হাসমত মেম্বরের কাছে দিয়েছেন। একই ইউনিয়নের মৃত মতলেবের ছেলে জসিম উদ্দীনের নিকট থেকে ৪নং ওয়ার্ড মেম্বর হাসমত আলী ৪০ হাজার টাকা গ্রহণ করেছে বলে অভিয়োগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে মেম্বর হাসমত আলীর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ওমর ফারুকের কাছে আমি টাকা চাইনি কিন্তু সে চৌকিদারের মাধ্যমে ১৫ হাজার টাকা দিয়েছে আর জসিমের কাজ থেকে কোন প্রকার টাকা পাইনি।
১০নং শংকরপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মো: নিছার উদ্দীন বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। আমি সচিবকে বলে মিটিং কল করে। যাচাই-বাছায়ের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুমী মজুমদার বলেন, গ্রাম পুলিশ নিয়োগের ক্ষেত্রে কোন প্রকার দূর্নীতি হলে দূর্নীতির সাথে সংযুক্তদের উপর আইনানুগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 58 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com