টাকা দেয় না ২৫ মন্ত্রণালয়

Print

২৫টি মন্ত্রণালয়ের কাছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) পৌরকর খাতে পাওনা ১৩১ কোটি ৯২ লাখ ৮৮ হাজার ২০৮ টাকা। দীর্ঘদিন ধরে পাওনা পরিশোধে অনীহা দেখিয়ে আসছে মন্ত্রণালয়গুলো। পৌরকর আদায়ে চসিক বার বার উদ্যোগ নিলেও তা আদায় হয় না। পৌরকর আদায় না হওয়ায় নগরের উন্নয়নকাজে গতি কমছে বলে জানা যায়। চসিকের রাজস্ব শাখা সূত্রে জানা যায়, চসিকের ৮টি সার্কেলে সরকারি হোল্ডিং রয়েছে ২ হাজার ২৮১টি। চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছর পর্যন্ত সরকারি ২৫ মন্ত্রণালয়ের কাছে পাওনা ছিল ১৪৫ কোটি ৫৩ লাখ ৩৪ হাজার ৫৯৪ টাকা।

এর বিপরীতে গত ৭ মার্চ পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানগুলো পরিশোধ করেছে মাত্র ১৩ কোটি ৬০ লাখ ৪৬ হাজার ৩৮৭ টাকা। বর্তমানে বকেয়াসহ মোট পাওনা ১৩১ কোটি ৯২ লাখ ৮৮ হাজার ২০৮ টাকা। চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা বলেন, ‘২৫ মন্ত্রণালয়ের কাছে অনেক টাকা এখনো বকেয়া রয়েছে। ১২ বছর পূর্বের বকেয়া টাকাও এখনো অনাদায়ী আছে। তবে বকেয়া পাওনা আদায়ে আমরা নিয়মিত উদ্যোগ নিয়ে থাকি। এটি একটি চলমান প্রক্রিয়া।’ চসিকের রাজস্ব বিভাগ সূত্রে জানা যায়, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের কাছে পাওনা ১০ কোটি ৮৮ লাখ ৮১ হাজার ৪৩৯ টাকা, আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কাছে ৫৮ লাখ ৩৪ হাজার ১৩৩ টাকা, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের কাছে ৯৪ লাখ ৪০ হাজার ৬২৭ টাকা, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছে ৫ কোটি ৩২ লাখ ৫১ হাজার ৮৪৭ টাকা, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও গণশিক্ষা বিভাগের কাছে ১ কোটি ৩০ লাখ ৫৩ হাজার ১২৭ টাকা এবং কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের কাছে ১৯ লাখ ৬২ হাজার ১২০ টাকা, অর্থ মন্ত্রণালয়ের কাছে ৮০ লাখ ৮৪ হাজার ১২১ টাকা, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের কাছে ৩ কোটি ৬৬ লাখ ৯৮ হাজার ৩৯১ টাকা এবং স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের কাছে ৭৪ হাজার ২৪৩ টাকা, ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের কাছে ২১ লাখ ১১ হাজার ১৮৪ টাকা, পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের কাছে ৫৮ লাখ ৪২ হাজার ৬৩৯ টাকা, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের কাছে ৮৪ কোটি ৭৩ লাখ ৫৩ হাজার ৪৬৬ টাকা, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের কাছে ২৩ লাখ ৪৩ হাজার ১১৬ টাকা, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের কাছে ৩৪ লাখ ৮ হাজার ১৬১ টাকা, কৃষি মন্ত্রণালয়ের কাছে ৮২ লাখ ৭৭ হাজার ৫৯১ টাকা, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের বিদ্যুৎ বিভাগের কাছে ৩ কোটি ৩১ লাখ ৫০৩ টাকা এবং জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগের কাছে ১ কোটি ৬১ লাখ ৩২ হাজার ৮২৬ টাকা, শিল্প মন্ত্রণালয়ের কাছে ৯ কোটি ৮৬ লাখ ২২ হাজার ২১ টাকা, ভূমি মন্ত্রণালয়ের কাছে ১ কোটি ২৩ লাখ ৬৯ হাজার ৬২ টাকা, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের কাছে ১৩ লাখ ৩ হাজার ১৬৬ টাকা, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের কাছে ৪ কোটি ২২ লাখ ৭৪ হাজার ৯০৫ টাকা, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের কাছে ২ কোটি ৪৩ লাখ ১৬ হাজার ১২৭ টাকা, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের কাছে ২০ লাখ ৭২ হাজার ৬৪০ টাকা, তথ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে ১২ লাখ ৭৬ হাজার ৯৪৮ টাকা, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের কাছে ১১ লাখ ৮৮ হাজার ৬৬৩ টাকা, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের কাছে ৭৪ লাখ ৫৬ হাজার ৮৩ টাকা, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কাছে ৪৩ লাখ ৫৬ হাজার ৬৮৩ টাকা এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের কাছে ৯ লাখ ৭১ হাজার ৩৪৬ টাকা পাওনা রয়েছে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 22 বার)


Print
bdsaradin24.com