‘ডিজিটাল সুরক্ষা চায় বাংলাদেশ, সেন্সরের দাবি অতিরঞ্জিত করেছে পশ্চিমা গণমাধ্যম’

Print

বাংলাদেশ খুব দ্রুতগতিতে ডিজিটাল যুগে প্রবেশ করেছে। গত বছর, দেশটির সংসদে নাগরিক তথ্য এবং ব্যক্তিগত গোপনীয়তার সুরক্ষার লক্ষ্যে ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট পাশ করে। এই আইনের ধারায় অনলাইনে মিথ্যে বা উস্কানিমূলক তথ্য প্রকাশে শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে। শুধু বাংলাদেশ নয়, বরং সারা বিশ্বজুড়েই এখন এমন আইন প্রণয়নের জোয়ার বইছে।

তবে পরিতাপের বিষয় হলো, অধিকাংশ পশ্চিমা গণমাধ্যম এবং বে-সরকারি গ্রুপগুলো বাংলাদেশের নতুন আইনের তীব্র সমালোচনা এবং নিন্দা জানিয়ে বলেছে, এর মাধ্যমে সরকার বাক-স্বাধীনতা এবং সাংবাদিকদের অধিকার হরণ করবে। কিন্তু, এমন দাবী সর্বাঙ্গে সত্য নয়। সত্য হচ্ছে, বাংলাদেশে সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতার অবিশ্বাস্য উন্নতি হয়েছে। নয়টি প্রধান জাতীয় পত্রিকা এবং ৩শ স্থানীয় পত্রিকা প্রকাশ্যে সকল ধরনের মতামত প্রকাশের সুযোগ পাচ্ছে। এর মাঝে সরকারের সমালোচনামূলক লেখাও রয়েছে।

বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন সরকারের দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরে, কিন্তু বাকি ৩০টি বেসরকারি নেটওয়ার্ক সংবাদ প্রচারে তাদের নিজস্ব বিশ্লেষণকে প্রাধান্য দেয়। তারা যেভাবে ভালো মনে করে, সেভাবেই সংবাদ পরিবেশনার স্বাধীনতা পায়। সরকার, ক্ষমতাসীন দলের রাজনীতিবিদ এবং তাদের নীতির আলোচনা-সমালোচনা করার ক্ষেত্রে তাদের সামনে কোন বাঁধা নেই। একইরকম, বৈচিত্রপূর্ণ সংবাদ পরিবেশনা দেখা যায় ২২০টির অধিক স্বাধীনভাবে পরিচালিত অনলাইন নিউজ সাইটে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 46 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com