ডিবি কার্যালয় থেকে শামসুন নাহার হলের ভিপি

Print

ডিবির সবাই চলে গেল। ওসি আমাদেরকে কফি দিতে বললেন। আমি মানা করে দিলাম। কফি গেলার মতন মানসিক অবস্থা তো ছিলই না, আগের রাতে না ঘুমানোর কারণে টানা চল্লিশ ঘন্টার উপরে জেগে থেকে শরীরও চলছিল না। তার উপর আবার দুপুর থেকে না খাওয়া, খালিপেটে কফি খেতামই বা কিভাবে? ম্যামকে ঘটনা খুলে বললাম। কিন্ত ওসি মহাশয়ের দরদ বেয়ে বেয়ে পড়ছিল। তিনি বললেন, কফি না নিলে ধরে নেব আপনি এখনো রাগ করে আছেন।

আমি নিজের ধৈর্য দেখে নিজেই অবাক হয়ে গেলাম। যে মেয়ে সামান্য কথাতেই রেগেমেগে একাকার হয়ে যায়, সেই মেয়েটা এরকম বীভৎস একটা উপহাসে জাস্ট নির্বিকার রয়ে গেলো। আসলে আমার স্নায়ুগুলো আর পেরে উঠছিল না। এর আগে এত বেশি চাপ ওদের ওপর দিয়ে যায়নি তো কখনো, তাই আরকি। শান্তভাবে জাস্ট উত্তর দিলাম, খুশি হওয়ার মতন কিছু তো ঘটেনাই৷ উত্তর শুনে ওসির মুখ কালো হয়ে গেল।

আমি হলে যাবার জন্য অস্থির হয়ে গেলাম। গায়ের জামাটা ছেঁড়া, ট্রাউজারটাও পুরোনো। পায়ে স্পঞ্জের জুতো। ওই অবস্থায় আমাকে নির্যাতিত কোনো কাজের মেয়ে ভেবে যে কেউই কনফিউজড হয়ে যেত আমি নিশ্চিত। ম্যাম বললো হলে যাওয়া যাবে না। আমি আর নিতে পারতেসিলাম না। শান্তভাবেই জিজ্ঞেস করলাম কেন যাবনা? মামলা তো দেয়নি, ছেড়েও দিয়েছে। তাহলে হলে যেতে অসুবিধা কোথায়। কাঁদার মতন শক্তিটুকুও আর অবশিষ্ট নেই আমার মাঝে। তবুও চোখ দিয়ে অনর্গল পানি পড়তে লাগলো। আমার ছেঁড়া জামা, জুতার কথা বললাম এতগুলো লোকের সামনে। এই অবস্থায় এতরাতে আমি কোথায় যাব। আর তাছাড়া আমাকে রেখে গিয়েছে হল প্রশাসনের জিম্মায়, আমাকে বলেছেও যে হলেই যাব আমি, কিন্ত না। মামাকে ফোন দেয়া হয়েছে। রাত সোয়া দুইটা তখন। আমি প্রচন্ড অবাক হলাম। বললাম মামার বাসায় যাব না, হলে যাব। আমার কথা কোনোভাবেই মানলেন না ম্যাম। কম করে হলেও দশবার রিকোয়েস্ট করেছিলাম। শেষমেশ না পেরে বললাম, আমি এককাপড়ে কই যাব এখন? অন্তত দশটা মিনিটের জন্য যাইতে দেন। আমার জামাটা ছেঁড়া, ঈদের আগে তো আর আসা হবেনা। আমি কয়টা জামাকাপড় নিয়ে আসি। ম্যাম তাতেও রাজি হলেন না।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 49 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com