ডিমলায় পুলিশের মোটরসাইকেলসহ তিন রাতে তিনটি গাড়ি চুরি!

Print

আইনশৃঙ্খলার অবনতিতে উদ্বেগ উৎকন্ঠায় এলাকাবাসী

বিশেষ প্রতিনিধি ঃ- নীলফামারীর ডিমলায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতি ঘটেছে। মাত্র তিনদিনের ব্যবধানে এক পুলিশ সদস্যের মোটরসাইকেল সহ দুটি মোটরসাইকেল ও একটি ব্যাটারী চালিত অটোবাইক চুরির ঘটনা ঘটেছে। চুরির কয়েকদিন
অতিবাহিত হবার পরও একটি গাড়িও উদ্ধার না হওয়ায় এলাকাবাসী রয়েছে চরম উদ্বেগ উৎকন্ঠায়। জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়েও।

চুরি যাওয়া গাড়ির মালিক ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, গত শনিবার ভোররাতে উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের রুপাহারা গ্রামের শশুর ওয়াজেদ আলীর বাড়ি থেকে জামাতা শাহিনুর ইসলামের একটি ব্যাটারী চালিত অটোবাইক চুরি করে নিয়ে যায় চোর। শাহিনুর নীলফামারীর ডোমার উপজেলার হরিনচড়া ইউনিয়নের আটিয়াবাড়ি গ্রামের ইউনুস আলীর ছেলে। সে দীর্ঘদিনযাবত ডিমলায় শশুর বাড়িতে থেকে ব্যাটারী চালিত অটোবাইক চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে আসছিলেন।
গত শুক্রবার সন্ধ্যায় ডিমলা থানায় চাকুরীরত পুলিশ সদস্য সফিকুল ইসলাম(কনস্টেবল নম্বর-২৬৪) অসুস্থ্য সহকর্মী আনোয়ার হোসেনকে দেখতে নিজ ব্যবহৃত মোটরসাইকেল যোগে ডিমলা উপজেলা সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে যান। এ সময়ে সফিকুল ইসলাম তার ব্যবহৃত কালো ও লাল রঙ্গের বাজাজ ডিসকভার ১০০সিসি মোটরসাইকেলটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রের সামনে রেখে মাত্র পাচ মিনিটের ব্যবধানে দ্বিতীয়তলা হতে নিচে নেমে দেখেন তার মোটরসাইকেলটি সেখান থেকে উধাও। পরে অনেক খোজাখুজি করেও মোটরসাইকেলটির সন্ধান না পেয়ে তিনি নিশ্চিত হন তা চুরি হয়ে গেছে।
অপরদিকে গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে কেমিকো ফার্মাসিউটিক্যালস ঔষধ কোম্পানির ডিমলা প্রতিনিধি(রিপ্রেজেন্টিভ) মোজাহারুল ইসলামের ডিমলা দক্ষিন তিতপাড়া মেডিকেল মোড়ের ভাড়া বাসার তালা ভেঙ্গে তার ব্যবহৃত রানার-১১০সিসি (ঢাকা মেট্রো-হ-২৬২২৭২ নম্বরের) লাল রঙ্গের মোটরসাইকেলটি চুরি করে নিয়ে যায় চোর।মোজাহারুল দিনাজপুরের বিরল উপজেলার নুনা গ্রাম দোহপাড়া গ্রামের মৃত,আব্দুল বাকির ছেলে।এ ঘটনায় তিনি ডিমলা থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করেছেন ।
ডিমলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফিজ উদ্দিন শেখ ইমেজ রক্ষার্থে বলেন, পুলিশ সদস্যের যে মোটরসাইকেলটি চুরির কথা বলা হচ্ছে তা আসলে চুরি হয়নি। অপর এক পুলিশ সদস্য মোটরসাইকেলটি না বলে নিয়ে গিয়েছিলেন, যা পরে পাওয়া গিয়েছে!
তবে চুরি যাওয়া মোটরসাইকেলের মালিক পুলিশ সদস্য সফিকুল ইসলাম সোমবার বলেন, আমার চুরি যাওয়া মোটরসাইকেলটি এখনো পাওয়া যায়নি!
সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার(ডোমার-ডিমলা)সার্কেল জয়ব্রত পাল বলেন,এ বিষয়ে আমি গিয়ে দেখে-শুনে যদি সত্যতা পাই তবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
এদিকে ডিমলা থানার একাধিক পুলিশ সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান,পুলিশের চুরি যাওয়া মোটরসাইকেলটি এখনো পাওয়া যায়নি। এমনকি পুলিশের ইমেজ নষ্ট হবার দোয়াই দিয়ে মোটরসাইকেলটির মালিক উক্ত পুলিশ সদস্যকে চুরির বিষয়ে কাওকে কিছু বলতে নিষেধ করছেন ওসি।মোটরসাইকেলটি হারানোর শোকে পুলিশ সদস্য সফিকুল শনিবার দুপুরে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাকে উপজেলার সরকারি হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে তার চিকিৎসা নেন সহকর্মীরা। তবে পুলিশের চুরি যাওয়া মোটরসাইকেলটিসহ তিনটি গাড়ি উদ্ধারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান তারা।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 113 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com