তামান্না তমাঃ শান্তি পায় অসহায়দের সাহায্য করে!

Print

তামান্না তমার গ্রামের বাড়ী চাঁদপুর, বর্তমানে বসবাস ডেমরা স্টাফ কোয়াটার, ডিগ্রী ২য় বর্ষের ছাত্রী তামান্না তমা ব্যক্তিগত ভাবে পুরান ঢাকা ব্লাড ডোনার্স এর সাথে যুক্ত । 

বিডি সারাদিন ডট কমের বিশেষ প্রতিনিধি আয়শা আক্তার লিজার সঙ্গে কথা হয় তামান্না তমার। বলেন, তার জীবনের পথচলা থেকে শুরু করে নানা প্রতিবন্ধকতার কথা।

★ আপনি এইসকল সামাজিক কাজ কেন করেন?

আমার ভালো লাগে করতে তাই।

★ আপনার মানবতার কাজে উৎসাহিত করণ কে এবং এই কাজের কোন বিষয় দেখে কাজে করেন?

নিজেই আগ্রহী ছিলাম,কেউ উৎসাহিত করেনি,তবে হে এই পথটা অচেনা ছিল।মাজেদ আর জাকিয়া আপুর মাধ্যমে ১ম পরিচয় হয়েছিল অনেক ভলান্টিয়ারদের সাথে,,১৪/১৫ সালে স্টাফ কোয়াটার এর একটি ক্যাম্পেইন এ।তার মধ্যে ছিল নজরুল ভাই,প্রিয়া আপু,নিশি আপু,অভিজিত রায়,মাহফুজ ভাই,ফয়সাল ভাই।পরে উনাদের সকলের কাজ দেখে অনুপ্রানিত হয়েছি।
অসহায় মানুষগুলোর মুখে হাসি ফোটানোর জন্যই এই কাজ করা।

★ এই কাজে ব্লাডের কিংবা মানবিক রিকোয়েস্ট আসলে আপনার কাছে কেমন মনে হয়?

যেকোনো রিকুয়েস্ট আসলেই নিজের কাছে ভালো লাগে,তবে ম্যানেজ করতে পারলে সেই ভালো লাগার পরিমানটা দ্বীগুন ভাবে বেড়ে যায়।আর না পারলে নিজেকে অপরাধী মনে হয় খুব খারপ লাগে।

★ প্রথম রক্তদানের অভিঙ্গতা কেমন-কততম রক্তদান করেছন?

১ম রক্তদান করেছিলাম বইমেলায়।যদিও তখন তেমন বুঝতাম না।তখন খুব এক্সাইডেড ছিলাম।ঘটনাটা এমন ছিল ১২ কি ১৩ সালে (সালটা খেয়াল নেই) বই মেলায় গিয়েছিলাম।তখন হাজার ভিরের মাঝে শুনতে পেলাম কিছু মেডিক্যাল স্টুডেন্ট মাইকিং করে ব্লাড দেয়ার জন্য সকলকে উৎসাহিত করছেন।তখন নিজ থেকে খুজে তাদের সাথে কথা বললাম এবং আমি আর আমার মামী একসাথে সেদিন ফাস্ট ব্লাড দিলাম,,,তারিখটা ২১ শে ফেব্রুয়ারি ছিল।এ পর্যন্ত মোট ৫ বার দিয়েছি এটাই সত্যি।৬ষ্ঠ তম রক্তদানের অপেক্ষায় আছি।

★ এই কাজে আর্থিকভাবে যে সাহায্য কর তা কি রকম এবং আপনার আয়ের উৎস কি?

২০০ করে করে দেই।আয়ের উৎস একটা টিউশানি করাই ১৫০০ টাকা। গেলো রোযায় আমার টিউশানি + বারতি ৫০০ টাকা ২০০ করে বিভিন্ন সংগঠনে দিয়েছিলাম। তার মধ্যে চট্টগ্রামেও গিয়েছিল এই সাহায্য। জুম স্কুলের অসহায় বাচ্চাদের বাবদ ৪০০ দিয়েছিলাম ইফতারের জন্য ২০০+ ঈদের জামা পথ শিশুদের জন্যও। আল্লাহর কাছে একটাই প্রার্থনা আল্লাহ যাতে আমাকে আরো দান / সাহায্য করার তৌফিক দান করেন।

 

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 164 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com