দোহারে ম্যাসেঞ্জার গ্রুপ ডাকাত দলের রনি ডাকাত চারদিনের রিমান্ডে

Print

 

মোঃ জাকির হোসেন, জেলা প্রতিনিধি : ঢাকার দোহারে ম্যাসেঞ্জার গ্রুপ নামে ডাকাত দলের আতঙ্কে আছে এলাকাবাসি। ঐ এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা রাত জেগে পাহারা দিচ্ছেন। উপজেলার দুবলি বাজার, মৌড়া বাজার ও ধীৎপুর এলাকায় এখন আতংকের নাম ম্যাসেঞ্জার গ্রুপ। ডাকাত দল যোগাযোগের সহজ মাধ্যাম হিসেবে ব্যাবহার করে অনলাইন ম্যাসেঞ্জার। এর আগেও ঐ এলাকায় চার পাচঁ বাড়িতে ডাকাতি করে সর্বস্ব লুটে নেয় ভয়ংকর ম্যাসেঞ্জার গ্রুপ ডাকাত দল।

এ সব চাঞ্চল্যকর তথ্য জানা যায় ঢাকার দোহার উপজেলার মুকসুদপুর ইউনিয়নের ধীৎপুর গ্রামের দূর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনায়। সেই মামলায় একজনকে আটক করে পুলিশ চার দিনের রিমান্ড নিয়েছেন। ভুক্তভুগি ও স্থানীয়রা জানান, গত ২৫ জুলাই বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ৮/ ১০ জনের একটি ডাকাতদল ধীৎপুর গ্রামের আবু সাঈদের দোতলা বিল্ডিংয়ের চিলেকোঠার টিন খুলে ভেতরে প্রবেশ করে ডাকাত দল। অস্ত্রের মুখে বাড়ির সবাইকে জিম্মি করে ৪৮ ভরি স্বর্ণালংকার, নগদ ১৬ লাখ টাকা , চারটি স্মার্ট ফোন লুটে নেয় ম্যাসেঞ্জারের ডাকাত গ্রুপ।ঐ ঘটনায় বাড়ির মালিক আবু সাঈদ বাদি হয়ে ২৮ জুলাই দোহার থানায় একটি ডাকাতি মামলা দায়ের করেন। পরে দোহার থানা পুলিশ উপজেলার জামালচর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে রনি(২৮) নামের এক ডাকাতকে আটক করে। আটককৃত ডাকাত রনিকে চার দিনের রিমান্ডে নিয়েছে দোহার থানা পুলিশ।

দোহার থানার ওসি তদন্ত ইয়াসিন মুন্সী জানান, ডাকাতি মামলায় আমরা রনি নামে একজনকে আটক করে অাদলতে প্রেরন করলে ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। রনির তথ্যে থেকে বাকি আসামিদের গ্রেপ্তাত করা হবে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 58 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com