দোহারে রাতের আধারে ৩৫০ বস্তা ভিজিএফ চাউল জব্দ, ভোরের আলোয় তা মুক্ত, জনতা ক্ষিপ্ত

Print
মহিউল ইসলাম পলাশ, দোহার (ঢাকা) প্রতিনিধি : ঢাকার দোহার উপজেলার বিলাসপুর ইউনিয়নের গোডাউনে রাতের আধারে ৩৫০ বস্তা ভিজিটি কার্ডের চাউল জব্দ করে ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যাজিষ্ট্রেট দোহার উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জ্যৌতি বিকাশ চন্দ্র। কিন্তু ভোরের আলোয় তা আবার মুক্ত করে দেয়। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ জনতা।
রবিবার রাত ৯ টার দিকে উক্ত ইউনিয়নে দোহার উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জ্যৌতি বিকাশ চন্দ্র অভিযান পরিচালনা করে ৩৫০ বস্তা ভিজিএফ চাউলসহ ইউনিয়নের গুদাম সীলগালা করেন।
তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, স্থানীয়দের অভিযোগের ভিত্তিতে গুদামটি সীলগালা করা হয়েছে। তবে এখানে প্রায় ৩৫০ বস্তা চাউল রয়েছে।
এগুলো কিসের চাউল আর কেন রয়েছে এবিষয়ে মুঠোফোনে জানতে চাইলে চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন মোল্লা কোন সদ উত্তর দিতে পারেনি। এছাড়া এখান থেকে চাউল চুরি হওয়ার মত ঘটনা ঘটতে পারে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে গুদামটি সীলগালা করা হলো। বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
উক্ত ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের সদস্য মো. আবুল হোসেন বলেন, এগুলো প্রধানমন্ত্রীর ভিজিটি ত্রান এর ৩০ কেজি করে চাউলের বস্তা। ভিজিটি ত্রানের কার্ডধারী ৮৫০ জনের মধ্যে চাউল বিতরণ করেছেন আমাদের চেয়ারম্যান জনাব, মো. আলাউদ্দিন মোল্লা। এ বিষয়ে তিনি নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি মেম্বারদের কিছুই জানাননি। এছাড়া এগুলো কিসের চাউল এগুলো কি করবেন এ নিয়েও মেম্বারদের সাথে কিছু বলেননি। এছাড়া মেম্বারগণ আরও বলেন ঐ চাউল গুলো গত ঈদুল ফিতরের ভিজিএফ এর চাউল। যাহা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে হতদরিদ্রের মাঝে বিতরণ করার কথা ছিল। কিন্তু তিনি এখনো বিতরণ  করেননি। এর পরে যত চাউল আসছে সেগুলো বিতরণ করেছেন। কিন্তু এই ৩৫০ বস্তা চাউল তিনি চুরি করতে চেয়েছিলেন।
কিন্তু পরদিন সোমবার সকালেই সীলগালা খুলে ফেলে চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন মোল্লা। প্রশাসনের নির্দেশকে বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে তালা ভেঙ্গে দেয় চেয়ারম্যান। এতে জনতা ক্ষিপ্ত হয়ে বিক্ষোভ ও মিছিল করে। উক্ত ইউনিয়নের মেম্বারদের নেতৃত্বে বিক্ষোভ ও মিছিল করে ইউনিয়নবাসী। মিছিলে বিক্ষোব্দ জনতা চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন মোল্লার বিরুদ্ধে  চাউল চুরি ও চাউল আত্মসাৎ করার পাঁয়তারা করছিল বলে অভিযোগ করে। এছাড়া প্রথমিক ভাবে প্রমানিত হয়েছে, আলাউদ্দিন মোল্লা অসদ উদ্দেশ্য চাউল গুলো গুদামজাত করে রেখেছিল।
আবার, আজ মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে উপজেলার সামনে আলাউদ্দিন মোল্লার চাউল চুরি কারার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন ও মিছিল করে বিলাসপুর ইউনিয়নের সাধারণ জনগণ। উক্ত মানববন্ধন ও মিছিলের নেতৃত্ব দেন বিলাসপুর ইউনিয়নের সকল মেম্বারগণ।
এতে এখন প্রশ্ন বিদ্ধ হচ্ছে উপজেলা প্রশাসন। কেন বা কোন অভিযোগের ভিত্তিতে গোডাউন সীলগালা করলেন? আবার কেনই বা আবার খুলতে দিলেন? এবিষয়ে উপজেলা প্রশাসন কোন মন্তব্য দেয়নি। বলে অভিযোগ করেন উক্ত ইউনিয়নের মেম্বারগণ। বিষয়টি এখন টপ অপ দা টাউনে পরিনত হয়েছে।
চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন মোল্লা জানান, আমাকে রাজনৈতিক ভাবে হয়রানি করার জন্য একটি মহল এগুলো করিয়েছে। আমি অসুস্থ এবং বন্যার কারনে চাউল বিতরণ করতে পারিনি সঠিক সময়ের মধ্যে। এছাড়া আমি তো ঐ চাউল নিজের বাড়ি বা অন্য কোথাও নিয়ে রাখিনি। জনগণের চাউল জনগণের ইউনিয়ন পরিষদেই রয়েছে। এখানে আমি চাউল চুরি করলাম কি ভাবে?
[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 75 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com