দৌলতখানে ভূমিদস্যুদের অত্যাচারে ক্রয়কৃত জমিতে দখলে যেতে পারছেনা অসহায় পরিবার

Print

ভোলা প্রতিনিধি!!
ভোলার দৌলতখান উপজেলার চরখলিফা ইউনিয়নের দিদারুল্লাহ ৪নং ওয়ার্ডে ক্রয়কৃত জমিতে ভোগ দখলে যেতে পারছে না এক অসহায় পরিবার। স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, ওই এলাকার ইব্রাহীম হাওলাদারের ছেলে আজিজ হাওলাদার প্রায় ৮ বছর পূর্বে একই এলাকার রেজাবল হাওলাদারের ছেলে আবু ছায়েদ ও সেলিমের কাছ থেকে ৯৬ শতাংশ জমি ক্রয় করে। পরে বিক্রেতারা আজিজ হাওলাদার তার বসত ঘরের পাশে একটি নির্মানাধীন ওয়ালসেট ঘরসহ ৪শতাংশ এবং বসত বাড়ীর পাশে ফসলি জমিতে ৮শতাংশ, মোট ১২ শতাংশ জমিতে ফিলার স্থাপন করে ক্রেতা আজিজ হাওলাদার গংদের দখল বুঝাইয়া দেয়। এর কিছু দিন পর বিক্রেতা চতুর ভূমিদস্যু আবু ছায়েদ ও তার ভাই সেলিম চিন্তা করে ক্রেতা আজিজ হাওলাদারকে কিছুতেই বসত বাড়ীর ৪ শতাংশ জমিতে দখল দেয়া যাবে না। বিগত ৮ বছর যাবৎ ভূমিদস্যুরা আজিজ হাওলাদার গংদের ক্রয়কৃত জমি থেকে বে-দখল কারার জন্য বিভিন্ন সড়যন্ত্রের জাল বুনতে থাকে। কোন ভাবেই ক্রেতাদের প্রাপ্য সম্পত্তি থেকে উৎখাত করতে না পেরে উল্লেখিত ভূমিদস্যুরা নানা ভাবে আজিজ হাওলাদারের পরিবারের উপর বিভিন্ন ভাবে ক্ষতি করে যাচ্ছে। স্থানীয় সূত্রে আরো জানাগেছে, যখনই আজিজ হাওলাদারগংরা তার বাড়ীর মধ্যের ৪ শতাংশ জমি ভোগ দখল করতে আসে, তখনই ভূমিদস্যু ২ ভাই নানা ভাবে আজিজ হাওলাদার গংদের ক্ষতি করার চেষ্টা করে। সূত্রে জানাগেছে, ভূমিদস্যুরা গত বছর রাতের আধাঁরে আজিজ হাওলাদারের বড় ভাই রফিকুল ইসলামের ৬০ হাজার টাকা মূল্যের একটি বলদ গরুকে বিষ পান করিয়ে মেড়ে ফেলে এবং এ বছরও ৫০ হাজার টাকা মূল্যের একটি গরুকে বিষ পান করিয়ে মেড়েফেলে। এ ছাড়াও প্রতি বছর রাতের আধাঁরে তাদের সুপারি বাগান লুট-পাট করে নিয়ে যায়। অন্যদিকে ভূমিদস্যুরা ক্রেতাদের ৪টি খড়ের চাউলিতে রাতের আধাঁরে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়াসহ তাদের রোপন করা বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কেটেফেলাসহ নানাবিধ ক্ষতি অব্যাহত রেখেছে। এ ব্যাপারে অভিযুক্তদের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তারা মিডিয়া কর্মীদের সামনে আসতে রাজি হয়নি। এ বিষয়ে ক্রেতা আজিজ হাওলাদার ও তার পরিবার তদন্ত সাপেক্ষে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 133 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com