ধর্ষকের সঙ্গে স্কুলছাত্রীর বিয়ে দিলেন এসআই

Print

পাবনায় গণধর্ষণের শিকার গৃহবধূকে থানায় ডেকে ধর্ষকের সঙ্গে বিয়ে দেয়ার ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার লালমনিরহাটে ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীকে ধর্ষকের সঙ্গে বিয়ে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে।

সপ্তম শ্রেণির ওই ছাত্রীর মামলা না নিয়ে ধর্ষকের সঙ্গে বিয়ে দিয়েছেন লালমনিরহাট সদর থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মাইনুল ইসলাম। সদর উপজেলার পঞ্চগ্রাম ইউনিয়নের সুভার বাড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ধর্ষণের ঘটনার ১০৮ দিন পর বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) থানায় মামলা হয়েছে। একই সঙ্গে ধর্ষণে অভিযুক্ত শাহিন আলমকে (২৪) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পাশাপাশি এসআই মাইনুল ইসলামকে সদর থানা থেকে লালমনিরহাট পুলিশের বি-সার্কেলে বদলি করা হয়েছে।

রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে পুলিশের রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি, জেলা পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর বাবা। পরে ঘটনা জানাজানি হলে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

জানা যায়, পঞ্চগ্রাম ইউনিয়নের প্রতিবেশী উমাপতি হরনারায়ণ গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে শাহিন আলমের কাছে প্রাইভেট পড়তো ওই স্কুলছাত্রী। এ সুবাদে স্কুলছাত্রীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে শাহিন। একপর্যায়ে তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক এবং গর্ভধারণের ঘটনা ঘটায়।

গত ২৫ জুলাই শহরের একটি ক্লিনিকে নিয়ে জোরপূর্বক স্কুলছাত্রীর গর্ভপাত ঘটায় শাহিন। পরে বিষয়টি জানতে পারে স্কুলছাত্রীর পরিবার। কিছুদিন পর গ্রাম্য সালিশের নামে টালবাহানা হওয়ায় গত ১১ আগস্ট লালমনিরহাট সদর থানায় শাহিনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা করেন স্কুলছাত্রীর বাবা।

১২ ও ১৪ আগস্ট দুদিন সদর থানা পুলিশের এসআই মাইনুল ইসলাম মামলাটি তদন্ত করেন। কিন্তু মামলাটি রেকর্ড না করে ধর্ষকের পক্ষ নেন এসআই। এর পরের দিন ধর্ষক শাহিনের সঙ্গে স্কুলছাত্রীর বিয়ে দেন এসআই মাইনুল। পাশাপাশি ছেলেকে ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দিতে ছাত্রীর বাবা বলেন এসআই।

১৭ আগস্ট প্রতিবেশী ইউনিয়ন মহেন্দ্রনগরের বিয়ের কাজি শহিদুল ইসলামের অফিসে এ বিয়ে হলেও স্কুলছাত্রীর পরিবারকে বিয়ের কাবিননামা দেয়া হয়নি।

স্কুলছাত্রীর বাবা বলেন, ধর্ষকের সঙ্গে বিয়ে দেয়া হলেও আমার মেয়েকে ঘরে তুলে নেয়নি শাহিন। গ্রামে প্রচার করছে আমার মেয়েকে ডিভোর্স দিয়েছে সে। সেদিন পুলিশ যদি মামলা রেকর্ড করে আসামিকে গ্রেফতার করতো তাহলে আজকের এই দিনটি আমাকে দেখতে হতো না। আমার মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষকের সঙ্গে বিয়ে দেয়ার জন্য এসআই মাইনুল ইসলামই দায়ী।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 52 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com