ধোনির কেঁদে কেঁদে মাঠ ছাড়ার সেই ঘটনা নিয়ে যা বললেন চাহাল

Print

গত জুলাইয়ে অনুষ্ঠিত ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে আউট হয়ে ফেরার পথে মহেন্দ্র সিংহ ধোনির কান্নার সেই মুহূর্ততি আবার আলোচনায় চলে এসেছে।

সে সময় ধোনির সেই কান্নার ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। তা দেখে আপ্লুত হয় ভারতবাসী। ধোনির সেই কান্নার মুহূর্তটি ভুলতে পারেননি লেগস্পিনার যুজবেন্দ্র চাহাল।

গত বিশ্বকাপটি ছিল চাহলের প্রথম বিশ্বকাপ। তাই তার অনুভূতিটা একটু বেশি আবেগপ্রবণ। জয়-পরাজয়সহ বিশ্বকাপে ঘটে যাওয়া প্রায় সব ঘটনাই মনে আছে তার।

তবে এসব ঘটনাকে ছাপিয়ে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষের ম্যাচে ধোনির সেই কান্নার দৃশ্যটি তার স্মৃতিতে বেশ আটকে আছে।

স্মৃতিরোমন্থন করে শনিবার নয়াদিল্লিতে এক অনুষ্ঠানে ভারতীয় এই লেগস্পিনার বলেন, ‘এটা ছিল আমার জীবনের প্রথম বিশ্বকাপ। মাহি ভাই (ধোনি) যখন আউট হয়ে ফিরলেন, আমি ব্যাট করতে নামি। ধোনির সেই কান্না দেখে নিজেকে সামলানো কঠিন ছিল। আমার পক্ষে। সবাই স্ক্রিনে দেখলেও বিষয়টা সরাসরি আমার ওপর দিয়ে গিয়েছিল। খেলতে নামার আগেই মি. ফিনিশারের কান্না হৃদয়ে একটা ধাক্কা দিয়েছিল। ’

সেদিন ধোনিকে সান্তনা দেয়ার মতো ভাষা ছিল না চাহালের কাছে। কারণ সবারই একই অবস্থা। চাহাল বলেন, ‘ শুরু থেকে ৯টা ম্যাচ আমরা দুর্দান্ত খেলেছিলাম। তারপরে হঠাৎ করে প্রতিযোগিতা থেকে ছিটকে যাওয়ার ঘটনাটা মন থেকে মানতে পারেনি আমাদের কেউ। বৃষ্টিকে থামানোর ক্ষমতা আমাদের হাতে ছিল না। তা নিয়ে কিছু বলার নেই। তবে সে দিনই প্রথম আমরা দ্রুত হোটেলে ফিরে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলাম।’

বিশ্বকাপের সেই স্মৃতির কথা জানিয়ে এবার নিজের দিকে তাকালেন চাহাল।

বিশ্বকাপের পরে ভারতীয় দলের হয়ে মাত্র একটি ওয়ানডে ম্যাচে খেলেছেন তিনি। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজের দলেও জায়গা হয়নি তার।

এ বিষয়ে যুজবেন্দ্র চাহালের বক্তব্য, কঠোর পরিশ্রম করে পারফর্ম করে ফের জাতীয় দলে দলে ফিরবেন তিনি।

তবে তিনি আইপিএলের দিকেই বেশি মনযোগী আপাতত। রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় তিনি ।

তিনি বলেন, ‘আমার কাজ ধারাবাহিকভাবে পারফর্ম করা। আমি এবং কুলদীপ যখন ভারতীয় দলে এলাম, তখন কিন্তু দু’জনেই ধারাবাহিকভাবে ভাল বোলিং করেছি। আইপিএলের পরে আমাদের দলের রিজার্ভ বেঞ্চের শক্তিও অনেক বেড়ে গিয়েছে।’

প্রসঙ্গত বিশ্বকাপে নকআউটপর্বে তথা সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হয়েছিল ভারত। এদিন ইনিংসের শুরু থেকে ভারত যখন একের পর এক উইকেট হারাচ্ছিল, তখনও মাঠে দেখা যাচ্ছিল না মহেন্দ্র সিং ধোনিকে।

পাঁচ রানে ৩ উইকেট হারানোর পর ২৪ রানে ৪ উইকেট হারায় ভারত। সেমিফাইনালের মতো ম্যাচে প্রথমে ৩ উইকেট হারিয়ে ভারত যখন বিপদে, তখনও ধোনি কেন ব্যাটিংয়ে নেই? এমন প্রশ্ন উঠেছিল কমেন্ট্রি বক্স থেকেও। এরপর খেলায় শুভ সমাপ্তি টানতে রিজার্ভ ডেতে সম্পূর্ণ দায়িত্বও এসে পড়ে ধোনির কাঁধে। উইকেটের একপ্রান্ত সামলে নিচ্ছিলেন এই সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক।

যদিও ম্যাচ ফিনিশ করতে পারেননি মি. ফিনিশার। গাপটিলের অসাধারণ থ্রোতে রান আউট হয়ে টেল-এন্ডারদের হাতে ম্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি।

কিউই বোলিং তোপে ১৮ রানে হেরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেন ২০১১ সালের চ্যাম্পিয়নরা। রানআউটের আগে ৭২ বলে ৫০ রান করেন তিনি। তবে এই অর্ধশতক যে মোটেই সুখকর ছিল না ধোনির জন্য তা বেশ বোঝা যাচ্ছিল সাজঘরে যখন ফিরছিলেন তিনি।

কাঁদতে কাঁদতে মাঠ ছাড়েন ধোনি। আর ধোনির সেই কান্না সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে রীতিমতো ভাইরাল হয়।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 47 বার)


Print
bdsaradin24.com