নাটোরের জঙ্গি আস্তানায় অভিযানঃ আটক চার

Print

জেলা প্রতিনিধি, নাটোরঃ
নাটোরের দিঘাপতিয়া এলাকার দুবাই প্রবাসীর বাড়ি থেকে চার জঙ্গিকে আটক করেছে পুলিশ। বাড়িটি ঘিরে রাখার তিন ঘন্টা পর অভিযান শেষে তাদেরকে আটক করা হয়। এসময় ৫টি ককটেল, ৪টি চাপাতি, জিহাদী বই, সালফারসহ বেশ কিছু সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে।

জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাড়ির মালিকের ভাই রফিক সিকদারকে ডিবি পুলিশের হোফজতে নেয়া হয়েছে। সোমবার (১২ মার্চ) মধ্যরাত থেকেই দীঘাপতিয়া এলাকায় উত্তরা গণভবনের পাশের ওই বাড়িটি ঘিরে রাখা হয়। পরে মঙ্গলবার ভোর ৪টার দিকে সন্দেহভাজন জঙ্গিদের আতœসর্মপণ করতে বলা হয়। এর কিছুক্ষণ পরই গুলির শব্দ শোনা যায়। বাড়িটি ল্যক্ষ করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে পুলিশ। ভেতরে থাকা এক জঙ্গি আতœসমর্পণ করার পর বাড়ির ভেতর প্রবেশ করে পুলিশ।

আটককৃতরা হচ্ছে, সিংড়া উপজেলার আরকান্দি পশ্চিমপাড়া গ্রামের ইউনুস আলী মিয়ার ছেলে আনিসুর রহমান ওরফে আনিস (৪০), বাগাতিপাড়া উপজেলার চাপাপুকুর গ্রামের মৃত শুকুর আলীর ছেলে শফিকুল ইসলাম (৪২), একই এলাকার মৃত ভিকু মন্ডলের ছেলে ফজলুর রহমান ওরফে ফজলু (৩৮) এবং নলডাঙ্গা উপজেলার খোলাবাড়িয়া পশ্চিমপাড়া গ্রামের ফোজলার রহমান এর ছেলে জাকির হোসেন ওরফে জাকির মাস্টার (৩৮)।

মঙ্গলবার (১৩ মার্চ) নাটোরের পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকদার জানান, বেশ কিছু জঙ্গী একটি বাড়িতে অবস্থান নিয়ে গোপন বৈঠক করছে এমন সংবাদে দিঘাপতিয়া এলাকার দুবাই প্রবাসি ইকবাল সিকদারের বাড়িটি গতরাত ৩টার থেকে ঘিরে রাখে পুলিশ। এসময় জঙ্গীদের অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার পর পুলিশ তাদের আত্মসমর্পনের জন্য বারবার আহবান জানান কিন্তু পুলিশের আহবানে কোন ভাবেই সাড়া দিচ্ছিল না তারা। পরে ফজর নামাজ পর এক জঙ্গি সদস্য পুলিশের আহবানে সাড়া দিয়ে ঘর থেকে বেরিয়ে আসে। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী আরো তিনজনকে আটক করা হয়। এসময় বাড়িটিতে তল্লাশি চালিয়ে ৫টি ককটেল, চারটি চা পাতি, বেশ কিছু জিহাদী বই, কিছু পরিমানের সালফার, একটি ল্যাপটপ, চারটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।

বাড়িটির পাশের এক বাসিন্দা জানান, সেখানে দিঘাপতিয়ার একজন ছাত্র থাকতেন। তিনি স্কাউট সদস্য ছিলেন। বাড়ির এক কক্ষ থেকে তার নাম লেখা একটি টিনের বাস্ক পাওয়া গেছে। বাড়ির মালিক ইকবাল সিকদার দুবাই থাকেন। বাড়িটি দেখাশোনা করেন তাঁর চাচাতো ভাই রফিক শিকদার। মাস খানেক আগে রফিক সিকদারের কাছ থেকে বাড়িটি ভাড়া নেয় আমির হামজা নামে দিঘাপতিয়া এম কে কলেজের এক শিক্ষার্থী । এরপর থেকেই বাড়িটিতে দু-একজন মানুষের যাতায়াত ছিল। বেশির ভাগ সময় বাড়িটির গেট বন্ধ থাকতো।

অভিযানে পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকদারের নেতৃত্বে মুল অভিযান পরিচালনা করেন, গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল হাই। এছাড়া নাটোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খায়রুল ইসলাম, নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মশিউর রহমান সহ ডিবি পুলিশের একটি বিশেষ দল এই অভিযানে অংশগ্রহন করেন।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 100 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com