নিষাদ-নিনিত ছাড়াও আরেকটি সন্তান আছে শাওনের

Print

অভিনেত্রী, পরিচালক, গায়িকা ও স্থপতি মেহের আফরোজ শাওন। জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক প্রয়াত হুমায়ূন আহমেদের দ্বিতীয় স্ত্রী তিনি। দুই সন্তানের জননীও শাওন।

শুক্রবার দিবাগত রাতে এক ফেসবুক পোস্টে জনপ্রিয় এ অভিনেত্রী জানিয়েছেন, নিষাদ ও নিনিত ছাড়াও তার আরো একখান পুত্র আছে। গতকাল শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) ছিল তার তৃতীয় পুত্র শুদ্ধ স্বরবর্ণের ৫ম জন্মদিন। এদিন ফেসবুকে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে নতুন সন্তানের ‘মা’ ডাকার ইতিহাস বলেছেন ।

পাঠকদের জন্য মেহের আফরোজ শাওনের ফেসবুক স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

নিষাদ নিনিত ছাড়াও আমার আরো একখান পুত্র আছে। তিনি অতি মিষ্ট স্বরে আমাকে মা ডাকেন। শুধু ‘মা’ ডাকেন না- ‘শাওন মা’ ডাকেন। উনার ‘শাওন মা’ ডাকের ইতিহাসটা বলি…

২০১৮ এর কোরবানী ঈদের সরকারী ছুটির প্রথম দিন- শুক্রবার। পুত্রদ্বয়কে নিয়ে বন্ধুদের সাথে রওনা হয়েছি ‘আরন্যক’ নামের এক ছায়াঘেরা মায়াময় রিসোর্টে। রিসোর্টটির স্বত্তাধিকারী সোহাইল আহমেদ (Sohail Ahmed) ভাই আমাদের অতিপ্রিয় একজন। ৩ গাড়ি ভর্তি করে দলবল নিয়ে যাচ্ছি সবাই। আমার গাড়িতে ‘তিনি’ এবং তার ‘মাম্মাই’ও আছেন।

আমি সামনের সিটে চালকের পাশে বসে দিক নির্দেশনা দিচ্ছি! সকাল ৮ টায় রওনা হয়েছি, ৫ ঘন্টা পার করেও গাজিপুর চৌরাস্তার কাছাকাছি গিয়ে আটকে আছি! সঙ্গের বাকি দু’টো গাড়ি অন্যপথ নিয়েছে। কেন যে আমি জিপিএস এর দেখানো পথে গেলাম! সবাই বিরক্ত! নিনিত প্রতি ৪ মিনিট ৫৯ সেকেন্ড পরপর জিজ্ঞেস করছে “মা আর কতক্ষণ লাগবে?” আমি জবাব দিতে দিতে ক্লান্ত। হঠাৎ এক চিপা রাস্তায় গাড়ি ঢুকিয়ে দিয়ে কিছুদূর এগিয়ে গেলাম আমরা। আমার গাড়িচালক গর্বিত গলায় বলল “দেখলেন ম্যাডাম কেমন ট্রিকস খাটায়ে গাড়িটা জ্যাম থেকে বাইর করে নিয়ে আসলাম!”

ঠিক এমন সময়ে গাড়ি হার্ড ব্রেক করতে বাধ্য হল। কিছু একটা হয়েছে, খুব হইচই। সামনের দু’তিনটা গাড়ি অতিদ্রুত ঘুরিয়ে উল্টোদিকে চলে যাচ্ছে। আমরা এমন বেকায়দায় আছি যে এগোতেও পারছি না, গাড়ি ঘুরাতেও পারছি না! দৌড়াদৌড়ি করা লোকজনের কাছ থেকে যা জানলাম সামনে অ্যাকসিডেন্ট হয়েছে। লেগুনা’র সাথে ধাক্কা লেগে একজন পথচারী স্পট ডেড! বেপরোয়া লেগুনা চালককে বাঁশ নিয়ে ধাওয়া করেছে জনগণ! তারা সামনে যেই গাড়ি পাচ্ছে সেটাই ভাঙছে!

২০১৮’র সেই সময়টায় বেপরোয়া গাড়ি চালানোর কারনে অনেকগুলো দুর্ঘটনা ঘটেছিল। পরিবহন চালকদের অনিয়ন্ত্রিত চালনার বিরুদ্ধে ছাত্র আন্দোলন শেষ হয়েছে মাত্র। এই অবস্থায় উত্তেজিত মানুষের ভিড়ের মধ্যে পড়ে কি অবস্থা হতে পারে তা সহজেই ভেবে নেয়া যায়। এমন সময় পেছনের সিট থেকে চিকন গলায় একজন জিজ্ঞেস করল- “মা আর কতক্ষণ লাগবে?”

আমি জবাব দিলাম না। সেই মুহুর্তে এই ঝামেলা থেকে কিভাবে বের হবো সেই চিন্তা করার চেষ্টা করছিলাম দ্রুত। পেছনের জন আবারো জিজ্ঞেস করলেন- “মা আর কতোক্ষণ লাগবে?”

এবার আমি একটু অবাক হলাম। প্রশ্নকর্তার কন্ঠ তো নিনিতের নয়! পেছনে তাকানোর আগেই তিনি স্পষ্ট গলায় বললেন- “শাওন মা… আর কতক্ষণ লাগবে?”

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 102 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com