ন্যূনতম আত্মসম্মানবোধ থাকলে শিক্ষামন্ত্রী পদত্যাগ করতেন-ড. আসিফ নজরুল

Print

এই সরকারের আমলে ব্যাংকিং খাতের পরে সবচেয়ে বড় বিপর্যস্ত খাত হচ্ছে শিক্ষা খাত। প্রশ্নপত্র ফাঁসের মাধ্যমে দেশে আগামী প্রজন্মকে নষ্ট করে দেওয়া হচ্ছে। এটার দায় শিক্ষামন্ত্রীকে চিরকাল বহন করতে হবে। প্রশ্নপত্র ফাঁসের কেলেঙ্কারীতে ন্যূনতম আত্মসম্মানবোধ থাকলে শিক্ষামন্ত্রী পদত্যাগ করতেন। টিভিএনএ’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল।

তিনি বলেন, দেশের ইতিহাসে কোনো শিক্ষামন্ত্রীর আমলে এমন নজিরবিহীন ঘটনা ঘটেনি। আগামী এক’শ বছর পর ইতিহাস লেখার সময় এই কলঙ্ক উঠে আসবে। ন্যূনতম আত্বসম্মানবোধ থাকলে তিনি বহু আগেই পদত্যাগ করতেন। তাকে শিক্ষামন্ত্রী রেখে কোনোভাবেই এ সমস্যা সমাধান করা সম্ভব নয়।

আসিফ নজরুল বলেন, শিক্ষা ক্ষেত্রে ঢালাওভাবে রাজনৈতিক পরিচয়ে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এর প্রভাব শিক্ষাখাতসহ অন্যান্য সকল খাতে নৈরাজ্য সৃষ্টি করছে। কারণ যারা এ ধরণের কাজ করছে তারা রাজনৈতিক পরিচয়ে নিয়োগ প্রাপ্ত। তাই এইধরণের অনৈতিক কাজ করতে তারা কোনো দ্বিধা করছে না।

তিনি বলেন, প্রশ্নপত্র ফাঁসের মাধ্যমে শিক্ষা ব্যবস্থাকে প্রায় ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে আদর্শ শিক্ষা ব্যবস্থায় গড়ে তুলতে সরকারের ইচ্ছা থাকলে এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত করতে হলে অতি শীঘ্রই এর পেছনে জড়িতদের শাস্তির আওতায় আনবেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উচিৎ বর্তমান শিক্ষামন্ত্রীকে বরখাস্ত করে একজন দক্ষ মন্ত্রীকে এ পদে দায়িত্ব দেওয়া। তাছাড়া উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন তদন্ত কমিটি গঠন করে বর্তমান নৈরাজ্যের পেছনে যারা জড়িত তাদের বিচারের সম্মুখিন করা।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 158 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com