নয়ন বন্ডের বিশেষ কক্ষে মিন্নিসহ ১২ ছাত্রীর সর্বনাশ !

Print

বরগুনায় প্রকাশ্যে রিফাত হত্যার ঘটনায় বন্দুকযুদ্ধে নিহত নয়ন বন্ডের অপকর্মের প্রমাণ এখন আইনশৃংখলা বাহিনীর হাতে এসেছে। তার একটি বিশেষ কক্ষের সন্ধান পেয়েছে পুলিশ। ওই কক্ষে ছাত্রীদের নিয়ে ফূর্তি করতো নয়নবন্ড। এদের মধ্যে কাউকে ব্ল্যাকমেইল কাউকে ভয় দেখিয়ে আবার কাউকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে নিয়ে যেত নয়নবন্ড। সেখানে নিয়ে ছাত্রীদের ধর্ষণের সময় বিশেষভাবে রাখা ক্যামেরায় ভিডিও করে রাখতেন তিনি। পরে ওই ভিডিওর ভয় দেখিয়ে একাধিকবার ছাত্রীদের সঙ্গে আপত্তিকর কাজে লিপ্ত হতেন। তার হাতে ঠিক কতজন ছাত্রীর সর্বনাশ হয়েছে তার সঠিক হিসাব পুলিশের কাছেও নেই। তবে নয়নের বিশেষ কক্ষ থেকে উদ্ধার করা একটি ল্যাপটপে প্রচুর পর্ন ভিডিও পাওয়া গেছে। ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া বেশ কয়েকটি পর্ন ভিডিওতে কয়েকজন তরুণীর সঙ্গে নয়ন বন্ডের অন্তরঙ্গ মহুতের দৃশ্য দেখা যাচ্ছে। ভিডিওর পাত্র পাত্রীদের মধ্যে নয়ন বন্ডের চেহারা স্পষ্ট। শুধু তার বিছানা সঙ্গী হওয়া তরুণীদের কারো কারো চেহারা অস্পস্ট। একেকদিন একেক ছাত্রীকে নিয়ে তিনি ফুর্তিতে মেতেছেন। রিফাতের স্ত্রী মিন্নিও তার লালসার শিকার হয়েছেন। এমন অন্তত ১২ ছাত্রীর সম্ভ্রম হারানোর তথ্য পুলিশের কাছে রয়েছে। এর বাইরেও অনেক ছাত্রী নয়নের লালসার শিকার হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

পুলিশের একটি সূত্র বলছে, নয়ন বন্ডের বিশেষ কক্ষের গোপন জায়গায় আইপি ক্যামেরা (ইন্টারনেট ক্যামেরা) সুকৌশলে সেট করা থাকতো। এমনভাবে সেগুলো সেট করা থাকতো যে ভুক্তভোগীরা ক্যামেরার অস্তিত্ব টের পেতেন না। একবার নয়নের সঙ্গে অন্তরঙ্গ হওয়ার পর তার আর রক্ষা ছিল না। বার বার সে নয়নের হাতে ব্যবহৃত হত। ভিডিও দেখিয়ে ব্ল্যাকমেইল করা হত অনেক ছাত্রীকে। অনেক ছাত্রী নয়নের হাত থেকে বাঁচতে কলেজ ছেড়ে আড়ালে চলে গেছেন। অনেকে তার চাহিদামত মোটা অংকের টাকা তুলে দিয়ে মুক্তি পাওয়ার চেষ্টা করেছেন। পুলিশের হাতে এমন অন্তত ১২ জন ছাত্রীর তথ্য আছে বলে জানা গেছে। নয়ন নিহত হওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কে বা কারা এসব ভিডিও ছড়িয়ে দিচ্ছে তার সন্ধান করতে পারেনি পুলিশ।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 78 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com