পেট যত বড়, মস্তিষ্ক তত ছোট!

Print

পেটে মেদ জমাটাকে কখনোই ভালো চোখে দেখা হয় না। তাতে বিভিন্ন ধরণের জটিল রোগ দেখা দেয়, এটা জানেন সবাই। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে, পেটে মেদ জমলে তা মস্তিষ্কের জন্যেও খুবই খারাপ।

পেটে মেদ জমাটাকে কখনোই ভালো চোখে দেখা হয় না। তাতে বিভিন্ন ধরণের জটিল রোগ দেখা দেয়, এটা জানেন সবাই। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে, পেটে মেদ জমলে তা মস্তিষ্কের জন্যেও খুবই খারাপ। যুক্তরাজ্যের এই গবেষণায় দেখা যায়, যাদের ওজন অতিরিক্ত বেশ ও পেটে মেদ রয়েছে, তাদের মস্তিষ্ক স্বাস্থ্যকর ওজনের মানুষের তুলনায় ছোট হয়ে থাকে। বিশেষ করে, পেটে মেদ থাকলে মস্তিষ্কে গ্রে ম্যাটার কম হতে দেখা যায়, অর্থাৎ স্নায়ুকোষ কম থাকে।

ইংল্যান্ডের লংবরো ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ও এই গবেষণার লেখক মার্ক হ্যামার জানান, ওবেসিটি, বিশেষ করে পেটে মেদ জমলে মস্তিষ্ক ছোট হয়ে যেতে পারে। মস্তিষ্ক ছোট হলে কী সমস্যা? সমস্যা হলো, বয়সের সাথে তাদের স্মৃতিশক্তি নষ্ট হওয়া ও ডিমেনশিয়ার ঝুঁকি বেশি হয় অন্যদের তুলনায়। গবেষণাটি প্রকাশিত হয় নিউরোলজি জার্নালে। তবে সম্পর্কটি এখনো গবেষকরা সন্দিহান। জন্মগতভাবে ছোট মাথার মানুষের পেটে মেদ বেশি জমে, নাকি পেটে মেদ জমলে মস্তিষ্ক ছোট হয়ে যায়, তা জানতে আরও গবেষণার প্রয়োজন।

বিপজ্জনক মেদ

বেলি ফ্যাট, বা ভিসেরাল ফ্যাট হলো সেটাই যা পেটের ভেতরে, গভীরে জমে থাকে। ত্বকের নিচেই যে মেদ থাকে, তারচেয়ে ভিসেরাল ফ্যাট বেশি ক্ষতিকর। অতীতের গবেষণায় দেখা যায়, ভিসেরাল ফ্যাটের কারণে হতে পারে হৃদরোগ, টাইপ ২ ডায়েবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ এমনকি অকাল মৃত্যু।

এর আগেও পেটের মেদের সাথে ছোট মস্তিষ্কের সংযোগ দেখা গেছে কিন্তু সেসব গবেষণা তেমন বড় পরিসরে করা হয়নি। যুক্তরাজ্যের এই গবেষণাটি করা হয় ৯,৬০০ মানুষের ওপর, যাদের গড় বয়স ছিল ৫৫ বছর। বয়স, ধূমপান, উচ্চ রক্তচাপ- এসব বিষয় বিবেচনায় রাখার পরেও দেখা যায় পেটের মেদ বেশি হলে মস্তিষ্ক ছোট হয়।

পেটের মেদ বেশি হলে কেন মস্তিষ্ক ছোট হয়, এর কারণ বের করার চেষ্টা করা হয়নি। তবে গবেষকদের কিছু ধারণা রয়েছে। তারা মনে করেন, পেটের এই মেদ কিছু ক্ষতিকর রাসায়নিক তৈরি করে যা মস্তিষ্কের কিছু অংশ অকেজো করে দিতে পারে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 17 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com