প্রাথমিকের সাড়ে ১০ কোটি বই ছাপা নিয়ে জটিলতা

Print

কাগজের ছাড়পত্র না মেলায় দেড় মাস ধরে বই ছাপা বন্ধ পরিদর্শন টিমের বিরুদ্ধে হয়রানির অভিযোগ

প্রাথমিকের সাড়ে ১০ কোটি বই ছাপা নিয়ে জটিলতা

নতুন বই হাতে এক শিক্ষার্থী –

সময়মত কাগজ ও আর্টপেপারের ছাড়পত্র না পাওয়ায় প্রাথমিকের সাড়ে ১০ কোটি বিনামূল্যের বই ছাপা নিয়ে জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে। এতে কার্যাদেশ পাওয়ার দেড় মাস পরও প্রাথমিকের একটি বই ছাপাতে পারেনি মুদ্রণের কাজ পাওয়া ৪৩টি প্রতিষ্ঠান। এতে নতুন বছরের প্রথম দিনে শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেয়া নিয়ে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) কর্তৃপক্ষের কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে। এনসিটিবি ও মুদ্রণ প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বশীল একাধিক সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

এনসিটিবির তথ্যানুযায়ী, ২০২০ শিক্ষাবর্ষের সাড়ে ১০ কোটি বই ছাপার কার্যাদেশ দেয়া হয় গত ২০ আগস্ট। চুক্তি অনুযায়ী আগামী ২০ নভেম্বরের মধ্যে শতভাগ বই ছাপিয়ে উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে পৌঁছে দিতে হবে। তবে কার্যাদেশের পরবর্তী ৪৯ দিনের মধ্যে মোট বইয়ের অর্ধেক সরবরাহ করতে হবে। কিন্তু ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১০ কোটি বইয়ের মধ্যে প্রাক-প্রাকমিকে অল্প কিছু ছাপা হলেও প্রাথমিকে একটি বইও ছাপা হয়নি। এজন্য কাগজ পরিদর্শনের থাকা প্রতিষ্ঠানকে দায়ী করে কর্মকর্তারা বলছেন, পরিদর্শনটি টিম মুদ্রণ প্রতিষ্ঠানকে অহেতুক হয়রানি করছে। সব ঠিক থাকার পরও কোনো কাগজের ছাড়পত্র দিচ্ছে না।

জানা গেছে, বিনামূল্যেই ৩৫ কোটি পাঠ্যবই ছাপার কাগজ, আর্টপেপারসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় বিষয়াদি দেখভালের জন্য সরকার বেসরকারি দুটি প্রতিষ্ঠানকে নিয়োগ দিয়েছে। প্রতিষ্ঠান দুটির দায়িত্ব কাগজ ও আর্ট কার্ডের মান যাচাই করে ছাড়পত্র দেয়া। কিন্তু সর্ষের মধ্যে ভূতের খোঁজ পেয়েছে এনসিটিবি। মাধ্যমিকে বস্নু বাইন্ডার্স এবং প্রাথমিক স্তরের জন্য কন্টিনেন্টাল ইন্সপেকশন বিডি’র বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ উঠেছে। এর মধ্যে কন্টিনেন্টালের বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট পেপার মিল থেকে কাগজ কিনতে বাধ্য করা, ছাড়পত্রের নামে মুদ্রণ প্রতিষ্ঠান থেকে উৎকোচ নেয়াসহ নানা হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। উৎকোচ না দিলে নানা

কারণে ছাড়পত্র আটকে দেয়া হচ্ছে। এতে প্রাথমিক পর্যায়ের সাড়ে ১০ কোটির বেশি বই ছাপার কাজ আটকে গেছে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 48 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com