বইমেলায় আজ ভালোবাসার রঙ

Print

প্রেমের কবি রবীন্দ্রনাথ ভালোবাসার বন্দনায় লিখেছেন, ‘সখী ভালোবাসা কারে কয়’। যেন তার-ই পসরা সাজিয়েছে প্রেমের মানুষেরা। প্রেম শাশ্বত। প্রেমই সত্য। প্রেমের জয়গান গাইতেই এত আয়োজন। ভালোবাসার বন্ধন মজবুত করতেই তো ছিন্ন হয় দুনিয়ার সব বন্ধন। প্রেমেই তো ট্রয় নগরী ধ্বংস হলো। আবার প্রেমেই তৈরি হলো তাজমহল। প্রেমের দুনিয়ায় কম্পন হয় প্রতিক্ষণে। ভালোবাসার এত রূপ! আর সব রূপ যেন ঝলসে উঠলো ফুলে ফুলে। হাজারো ফুল। তাতে কত রং। আর সব রং যেন এসে মিশেছে ভালোবাসায়। ফুলেই সেজেছিলো ভালোবাসার দিন। ছবিটি গতকাল রাজধানীর শাহবাগ থেকে তুলেছেন এম খোকন সিকদার
ফাগুনের আগুন শেষে ভালোবাসার রঙে রাঙ্গালো অমর একুশে গ্রন্থমেলা। ভালোবাসার হাওয়ায় রঙিন হয়ে উঠলো গতকালের বইমেলা। ভালোবাসার শেষ বিকেলে জমলো মেলা। ভালোবাসা আর বই যেন একইসূত্রে গাঁথা। প্রিয়জনকে না বলা কথা লেখক কলমে বলে দেওয়ায় বইয়ের গুরুত্ব অনেক। আর সেজন্যই প্রেমিকের মন খোঁজে বইয়ের আশ্রয়। প্রিয় পংক্তিমালাগুলো প্রিয়জনের হাতে তুলে দিতে প্রেমিক-প্রেমিকাদের ভিড় জমে বইমেলায়। বিশ্ব ভালবাসা দিবস উপলক্ষ্যে বইমেলায় ছিল উপচেপড়া ভিড়। চারটি প্রবেশ দ্বার দিয়ে বানের ঢলের মত মানুষ প্রবেশ করছে মেলা চত্বরে। আগের দিন পহেলা ফাল্গুন আর ভালোবাসা দিবস- এ দু-দিনের বিক্রি নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন প্রকাশকরা।
মনের কথাগুলো কবির লেখনিতে ভর করে প্রেমিককে জানান দেয় ভালোবাসার। নতুন বই আর লাল গোলাপের মিশ্রণে ভালোবাসা পায় নতুন মাত্রা। সঙ্গে প্রিয়জনকে অনেকেই করেন প্রেম নিবেদন। তাই গতকাল বিশ্ব ভালবাসা দিবসে বইমেলাই হয়ে ওঠে প্রধান গন্তব্য। আগের দিনের বসন্ত উৎসবে মেতে বইমেলাকে রাঙিয়ে তুলেছিল তরুণ-তরুণীরা। গতকালও ভালবাসায় ভিজলো বইমেলা। মেলার শুরু থেকেই জমে উঠলো ভালোবাসার মানুষের পদচারণায়। ভালবাসা দিবস উপলক্ষে বইমেলার স্টলে স্টলে চলে এসেছে উপন্যাস, গল্প, কবিতার নানান বই। প্রতিটি স্টলে ছিল বইপ্রেমীদের ভিড়। যাচাই বাছাই করে তাদের পছন্দের লেখকের বইটি কিনতে দেখা গেছে। পঞ্জেরী প্রকাশনীর বিক্রেতা জাবেদ আনজুম বলেন, আজ ভালোবাসা দিবসে ক্রেতা-দর্শনার্থীর ভিড় অনেক। বেচাকেনাও অনেক ভালো হচ্ছে। দম ফেলানোর সময় পাচ্ছি না। কমিকের বই বেসিক আলী বেশি বিক্রি হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, আজকের দিনটি তো কথা বলা আর ভালোবাসা আদান-প্রদানের দিন। এমন দিনে বই পড়ার সময় কই! তারপরও বেঁচাবিক্রি বেশ ভালো হচ্ছে। পহেলা ফাল্গুনের দিনও ভালো বিক্রি হয়েছে। মিরপুর থেকে আসা নাদিয়া আক্তার বলেন, ভালোবাসা দিবসে প্রিয় মানুষের সঙ্গে সারাদিন ঘুরে বেড়ানো। পরে বইমেলায় এসে বই কেনা- যেন এক অলিখিত নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে। বইকেনা আর ঘুরে বেড়ানো ছাড়া এদিন আর সময় কাটে না। কি কি বই কিনেছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, কেবল আসলাম মেলায়। প্রিয় লেখকের বই কিনবো, প্রিয় মানুষকে উপহার দেওয়ার জন্য। অনেকে মেলায় এসেছেন বইয়ের ভালোবাসার টানে। তেমনই কথা হলো তুহিন খান নামের একজনের সঙ্গে। তিনি বলেন, ভালোবাসার মানুষ নেই বলে কি আর মেলায় আসা যাবে না ? অন্যরা আজ প্রিয় মানুষকে ভালোবাসার কারণে মেলায় আসলেও আমি এসেছি বইয়ের ভালোবাসায়। কাউকে উপহার না দিলেও পছন্দের লেখকের বই কিনবো। পুরো বছর বইমেলার জন্য অপেক্ষা করে থাকি। পছন্দের বই কিনবো বলে।
মেলায় আসা দম্পতি কানিজ ফাতিমা ও মাহফুজ আহমেদ বলেন, ভালোবাসা তো সবসময়ই থাকে। এজন্য বিশেষ কোনো দিনের প্রয়োজন হয় না। প্রতিটা দিন, প্রতিটি মুহূর্তই খুব স্পেশাল। কিন্তু তারপরেও কিছু দিন থাকে যা অন্যরকম আবহ নিয়ে আসে। ভ্যালেন্টাইন ডে তে বইমেলায় আসার একটি রেওয়াজ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই এবারও মিস করতে পারি নি, চলে আসলাম। কিছুক্ষণ ঘোরাঘুরি পর কেনাকাটা করবো। সৃজনশীল প্রকাশনীর বিক্রেতারা জানান, মেলার প্রথম দিন থেকেই উপন্যাস ও প্রবন্ধের বই ভালো বিক্রি হচ্ছে। ভালোবাসা দিবসেও এখন পর্যন্ত ভালো বিক্রি হচ্ছে বলে তারা জানান।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 145 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com