বাথরুমে মিলল মাদরাসা শিক্ষকের গলাকাটা লাশ

Print

নরসিংদীতে তোফাজ্জল হোসেন (৩০) নামে এক মাদারাসা শিক্ষকের গলা কাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার সকালে মনোহরদী বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন কুলি মিয়ার ভাড়া বাসা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। স্ত্রীর দাবি তিনি আত্মহত্যা করেছেন।

পুলিশ জানিয়েছে নিহত মাদরাসা শিক্ষকের বাড়ি নেত্রোকোনোর কেন্দুয়া উপজেলার পূবাইল গ্রামে। বাবার নাম মমতাজ উদ্দিন। তিনি একদুয়ারিয়া ইউনিয়নের দরবেশেরকান্দা হাফিজিয়া মাদরাসায় শিক্ষকতা করতেন। গত ছয় মাস ধরে মনোহরদী বাসস্ট্যান্ডের পূর্বপাশে কুলি মিয়ার বাড়িতে স্ত্রীকে নিয়ে ভাড়া ছিলেন।

স্ত্রী আয়েশা আক্তার হ্যাপীর (৩৫) বাড়ি পার্শ্ববর্তী কাপাসিয়া উপজেলার খিরাটি গ্রামে। তার বাবার নাম সিরাজুজ্জামান। এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আয়েশা আক্তারকে আটক করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, প্রায় ১৫ বছর আগে চালাকচর গ্রামের কাজিম উদ্দিনের সঙ্গে আয়েশা আক্তারের বিয়ে হয়। ওই সংসারে সামি (১৩) নামে তার এক ছেলে রয়েছে। গত ১০ বছর আগে স্বামী মারা গেলে তিনি বাবার বাড়ি চলে আসেন। পরে মনোহরদীর একদুয়ারিয়া দরবেশেরকান্দা হাফিজিয়া মাদরাসায় ছেলেকে ভর্তি করান। একই প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করতেন তোফাজ্জল হোসেন। সেই সুবাদে দু’জনের মধ্যে পরিচয় হয়। যা পরবর্তীতে প্রেমে গড়ায়। এরপর গত রমজান মাসে তারা নিজ সিদ্ধান্তে বিয়ে করে মনোহরদীতে ভাড়া বাসায় বসবাস করতে থাকেন।

বিয়ের পর কিছুদিন দু’জনের মাঝে সম্পর্ক মধুর থাকলেও গত তিন মাস ধরে দেখা দেয় তিক্ততা। প্রায় প্রতিদিনই তাদের মধ্যে ঝগড়া এবং মারামারি হতো।

স্ত্রীর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, আজ (রোববার) ভোর রাতে তোফাজ্জল বাথরুমে যান। দীর্ঘ সময় পরও তিনি বাথরুম থেকে বের না হওয়ায় সন্দেহ হয়। পরে দরজা ভেঙে দেখেন বটি দিয়ে নিজের গলা কেটে ফেলেছেন তোফাজ্জল। এ সময় প্রচুর রক্তক্ষরণে বাথরুমেই মারা যান তিনি।

আয়েশা আক্তার বলেন, দুই মাস আগে তোফাজ্জল মাদরাসার শিক্ষকতা ছেড়ে দেন। এরপর সারাদিন বাসায় শুয়ে বসে সময় কাটাতেন। কোনো কাজ-কর্ম না করায় সংসারে আর্থিক সংকট দেখা দিলে তারা ঋণগ্রস্থ হয়ে পড়েন। এসব নিয়ে তার সঙ্গে প্রায়ই ঝগড়া হতো।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 58 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com