বিদেশি চ্যানেলের বিজ্ঞাপন বন্ধের প্রযুক্তি নেই বাংলাদেশে

Print

ফিল্টারিংয়ের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন বন্ধের কোনো প্রযুক্তি ক্যাবল অপারেটর এবং ডিস্ট্রিবিউটরদের নেই। যদিও সরকার বিদেশি চ্যানেলের বিজ্ঞাপন বন্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে শাস্তি দেয়ার কার্যক্রম শুরু করেছে।

ডিস্ট্রিবিউটররা (ব্রডকাস্টারের স্থানীয় পরিবেশক) জানিয়েছেন, আইনানুযায়ী সেবা প্রদানকারী হিসেবে ক্যাবল অপারেটরদের চ্যানেল ফিল্টারিং (অযাচিত কোনো কিছু সম্প্রচারের অংশ থেকে বাদ দেয়া) করে সম্প্রচার করার কথা। ক্যাবল অপারেটররা জানিয়েছেন, চ্যানেল ফিল্টারিং প্রযুক্তি অত্যন্ত ব্যয়বহুল, বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে অপারেটরদের সেই সক্ষমতা নেই। বিজ্ঞাপন মুছে দেয়া কিংবা বন্ধের কাজটি ডিস্ট্রিবিউটরদেরই করতে হবে।

অপারেটরদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা অব্যাহত থাকলে তারা আন্দোলনে যাবেন, এমনকি আইনের আশ্রয় নেবেন বলেও জানান ক্যাবল অপারেটর নেতারা।

সোমবার তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ সংবাদ সম্মেলনে জানান, বাংলাদেশে যেসব বিদেশি টেলিভিশন চ্যানেল দেখানো হয়, আইন অনুযায়ী সেগুলো যাতে বিজ্ঞাপন প্রচার না করতে পারে সেজন্য ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবে সরকার।

এছাড়া ক্যাবল আপারেটররা যাতে বিজ্ঞাপন ও অন্যান্য অনুষ্ঠান প্রচার করতে না পারে এবং টেলিভিশনের মালিকদের সংগঠনের নির্ধারণ করে দেয়া ক্রম অনুযায়ী যেন টিভি চ্যানেল দেখানো হয়, তা নিশ্চিত করতেও ভ্রাম্যমাণ আদালত কাজ করবে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী।

ক্যাবল টেলিভিশন নেটওয়ার্ক পরিচালনা আইন- ২০০৬ এর উপধারা-১৯ এ সেবা প্রদানকারী ক্যাবল টেলিভিশন নেটওয়ার্কের মাধ্যমে যেসব অনুষ্ঠান সম্প্রচার বা সঞ্চালন করা যাবে না তা উল্লেখ করা হয়েছে। এ ধারার ১৩ উপধারায় বলা হয়েছে, বাংলাদেশের দর্শকদের জন্য বিদেশি কোনো চ্যানেলের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রচার করা যাবে না।

সেবাপ্রদানকারীর সংজ্ঞায় বলা হয়েছে, এমএসডিএস, ডিটিএইচ বা অন্য কোনো যন্ত্রের মাধ্যমে গ্রাহকদের মধ্যে চ্যানেল সঞ্চালন বা সম্প্রচার করে এমন কোনো এমএসও, ক্যাবল অপারেটর, ফিড অপারেটর বা ব্যক্তি।

বাংলাদেশে পে-চ্যানেলের পরিবেশক জাদু ভিশন লিমিটেডের পরিচালক নাভিদুল হক জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমরা আছি ডিস্ট্রিবিউশন পার্টে। এখানে এ বিষয়ে আমাদের কিছু করার নেই। কারণ কোনো অ্যাড যদি রিমুভ বা বন্ধ করতে হয় আইনে স্পষ্টভাবে বলা আছে সেটা সেবা প্রদানকারীকে করতে হবে। ডিস্ট্রিবিউটর তো সেবা প্রদানকারী নয়। সেবা প্রদানকারী হচ্ছে ক্যাবল অপারেটর বা যারা ডিটিএইচ সেবা দিচ্ছে। ডিস্ট্রিবিউটর সাবসক্রাইবার কোনো সেবা দেয় না, ডিস্ট্রিবিউটর ট্রেডিং হাউজ বা এজেন্ট হিসেবে কাজ করে।’

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 38 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com