‘বিয়ে ভাঙানোর’ অপবাদে গৃহবধূকে গাছে বেঁধে নির্যাতন, গ্রেফতার ২

Print

বিয়ে ভেঙে দেয়ার মিথ্যা অপবাদে রংপুরে গঙ্গাচড়ায় এক গৃহবধূকে গাছে বেধে অমানকি নির্যাতন ও চুল কেটে দিয়েছে নির্যাতনকারীরা। এঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৮ আগস্ট) সন্ধ্যায় ২ আসামিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বুধবার (৭ আগস্ট) ওই নির্যাতনের ঘটনা ঘটে রংপুর রংপরের গঙ্গাচড়া থানার বেতগাড়ী পুটিমারী গ্রামে শহর ছেড়ে প্রায় ৩০ কিলোমিটার দূর। নির্যাতিতা গৃহবধূর জামাতা মোকলেছ মিয়া মামলার বাদি হয়ে থানা পুলিশের কাছে দেয়া লিখিত অভিযোগ করেন।

থানায় অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, প্রায় একমাস আগে নির্যাতিতা গৃহবধূর চাচা শ্বশুড় আব্দুল মতিনের মেয়ে মৌসুমি বেগমের (২৪) সঙ্গে রংপুর সদর থানার পাগলাপীর এলাকায় লিটন মিয়ার বিয়ে হয়। বিয়ের পর লিটন মিয়া বিভিন্ন সূত্রে জানতে পারে তার স্ত্রীর সাথে অনেকের বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক ছিল। এই অপবাদে স্ত্রী মৌসুমি বেগমকে গত ২১ জুলাই তার স্বামী লিটন মিয়া তালাক দেয়।

এ ঘটনায় মানিকা বেগমের দেবর আব্দুল মতিন ও তার মেয়েসহ স্ত্রী সকলেই মনে করে এই তালাকের নেপথ্যে মানিকা বেগম দায়ী। সে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে তার মেয়েকে তালাক দেয়ার ইন্ধন যুগিয়েছে। মেয়ের এ নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে তাদের দুই পরিবারের মাঝে ঝগড়া বিবাদ চলছিল। সর্বশেষ বুধবার (৭ আগস্ট) বিকেলে মানিকার দেবর আব্দুল মতিন, তার মেয়ে, স্ত্রী, অপর দেবর আব্দুল মোত্তালেব (৪৩)সহ পরিবারের লোকজন মিলে মানিকা বেগমকে বেধড়ক মারধর করে। এক পর্যায়ে তাকে গাছের সাথে বেঁধে দিনভর নির্যাতন করে মাথার চুল কেটে গলায় জুতার মালা পরিয়ে দেয়া হয়।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 23 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com