বেকায়দায় মেনন

Print

নিজ নির্বাচনী এলাকায় একের পর এক ক্যাসিনোকাণ্ডে সমালোচনায় জেরবার ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি সাংসদ রাশেদ খান মেনন গত নির্বাচন নিয়ে বক্তব্য দিয়ে নতুন করে সমালোচনার মুখে পড়েছেন। ক্ষমতাসীন দলের জোট ১৪ দলের শীর্ষ এই নেতা সম্প্রতি দাবি করেছেন, তিনি সাংসদ হলেও গত সংসদ নির্বাচনে এবং পরবর্তী উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মানুষ ভোট দিতে পারেনি। এ নিয়ে তোলপাড় রাজনৈতিক অঙ্গন। সমালোচনার তোড়ে এই মুহূর্তে অনেকটা একলা হয়ে গেছেন জোট সরকারের সাবেক এই মন্ত্রী।

এমনকি সরকারের বিরোধী পক্ষ তার এই বক্তব্যকে লুফে নিলেও তিনি এত দিনে পদত্যাগ না করায় সমালোচনা করা হচ্ছে তার। এখন আহ্বান জানানো হচ্ছে পদত্যাগের। জোট ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে সমালোচনার পাশাপাশি সমানতালে চলছে ট্রল। দাবি করা হচ্ছে তার বিরুদ্ধে অভিযানের।

এবার নিজের ঘরে ধাক্কা খেলেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি। বর্তমান নেতৃত্বের আদর্শচ্যুতির অভিযোগ তুলে পার্টি ছেড়েছেন পলিটব্যুরোর সদস্য ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক বিমল বিশ্বাস। গতকাল ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন বর্ষীয়ান এই রাজনীতিক। এর মধ্য দিয়ে পার্টি আরেক দফা ভাঙনের হুমকিতে পড়ল বলে গুঞ্জন চলছে।

এদিকে গতকাল ১৪ দলের জরুরি বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে, নির্বাচন নিয়ে তার বক্তব্যের ব্যাখ্যা চাওয়া হবে। এরপর তার বিষয়ে করণীয় ঠিক করবে জোট।

বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের ওই বৈঠকে যাননি মেনন। তবে তার দলের সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা উপস্থিত ছিলেন সেখানে।

গত শনিবার বরিশালে ওয়ার্কার্স পার্টির এক অনুষ্ঠানে ৩০ ডিসেম্বরের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মানুষ ভোট দিতে পারেনি বলে দাবি করেন রাশেদ খান মেনন। বলেন, ‘২০১৮ এর নির্বাচনে আমিও নির্বাচিত হয়েছি। তার পরও আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি, ওই নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি। এমনকি পরবর্তীতে উপজেলা এবং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও ভোট দিতে পারেনি।’

পরে সমালোচনার মুখে ক্ষমতাসীন জোটের এই নেতা পরের দিন এক বিবৃতিতে দাবি করেন, তার বক্তব্য সম্পূর্ণ উপস্থাপন না করে অংশবিশেষ উত্থাপন করায় এই বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে।

মেনন যা-ই বলুন না কেন, তার বক্তব্যে ক্ষুব্ধ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। আপাতত কয়েক দিন আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে কোনো অনুষ্ঠানে না যেতে আওয়ামী লীগসহ ১৪ দলের নেতারা তাকে পরামর্শ দেন। অসুস্থতা নয়, এ কারণেই গতকালের বৈঠকে যাননি তিনি।

তবে বৈঠকে মেননের না থাকা নিয়ে ১৪ দলের সমন্বয়ক মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘তার (মেনন) পার্টির সেক্রেটারি এসেছেন। তিনি কেন আসেননি, তা আমি বলতে পারব না।’

এর আগে সোমবার রাতে ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিমের ধানমণ্ডির বাসভবনে জোটটির শরিক দলগুলোর নেতাদের এক চা-চক্র হয়। সেখানেও উপস্থিত ছিলেন না মেনন।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 57 বার)


Print
bdsaradin24.com