‘মোবাইল ডিজিজ’ নিয়ে বেড়ে উঠছে শিশু, পরিণতি ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে

Print

আপনার স্কুলপড়ুয়া ছেলে বা মেয়েটি পড়াশোনার বাইরে কি নিয়ে ব্যস্ত থাকে অবসর পেলে? একজন অভিভাবককে প্রশ্নটা করলে প্রথমে একটু অবাক হবেন হয়তো। কিছুটা সময় পরে বলবেন-ও মোবাইল নিয়ে গেমস খেলে। পড়াশোনার ব্যাপারে মোবাইল কাজে লাগে, তাই ওটা নিয়ে ব্যস্ত থাকে। বাইরে কোথাও ঘোরার পরিবেশ নেই। তাই ঘরে বসে সময় পার করে, পড়াশোনা শেষ করে।

খুবই যুক্তিসংগত কথা। শহরে একটুও ঘোরার পরিবেশ নেই। খেলার মাঠ নেই। বিনোদন কেন্দ্রগুলো মাদকাসক্তদের বিচরণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। স্কুলপড়ুয়া কিশোর বা কিশোরী কোথায় যাবে? ক্লাস শেষে বাড়ি ফিরে একটা কিছু নিয়ে থাকাটাই স্বাভাবিক। তাই মোবাইল নিয়েই থাকে।

আমাদের একটা প্রজন্ম বেড়ে উঠছে এই ‘মোবাইল ডিজিজ’ নিয়ে। বলা যেতে পারে ‘মোবাইল ডিজেবল’ হয়ে বেড়ে উঠছে। এভাবে বললে একটু বেশিই বলা হয়ে যায়। সত্য কথা কঠিন মনে হয়, ‘তবুও কঠিনেরে ভালোবাসতে’ হবে।

বাসায় কোনো আত্মীয়স্বজন এলে দেখতে পান আপনার ছেলেটি বা মেয়েটি পড়ার টেবিলে বা বিছানার এক কোনায় বসে একমনে মোবাইল নিয়ে মেতে আছে। মাথা নিচু করে কুঁজা হয়ে দুই হাতের বুড়ো আঙুল মোবাইলের ওপর রেখে একটা কিছু করছে। বন্ধুর সঙ্গে চ্যাট করছে, নয়তো ফেসবুক বা কোনো গেমস নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছে। এর বাইরেও ইন্টারনেট ঘাঁটাঘাঁটি করে নানা সাইটে ঢুকে দেখার চেষ্টা করে। সেই সাইটে ঢুকে অনেক কিছুর সঙ্গে নির্দিষ্ট বয়সের আগেই মানবজীবনের অনেক চিরায়ত বিষয় জেনে যাচ্ছে। যার কোনোটা তার নৈতিক চরিত্রের স্খলন ঘটাতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে কখনো কখনো।

সবচেয়ে বড় ব্যাপার হচ্ছে, এভাবে বসে বসে কুঁজা হয়ে একমনে মোবাইলে নিমগ্ন থেকে শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ছে। যার প্রভাব হয়তো এখন বোঝা যাবে না। কিছুদিন পর দেখা যাবে তার ঘাড় থেকে পিঠ পর্যন্ত খানিকটা বাঁকা হয়ে গেছে। তার কথাবার্তা, আচার-আচরণেও এর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। এটাকে ‘মোবাইল ডিজেবল’-এর লক্ষণ বললে খুব বেশি বলা হবে?

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 17 বার)


Print
bdsaradin24.com