মৌসুমীকে যা বললেন মিশা সওদাগর

Print

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০১৯-২১ শুক্রবার নির্বাচনে স্বতন্ত্রপ্রার্থী মৌসুমীকে হারিয়ে বিজয়ী হন খল অভিনেতা মিশা সওদাগর।

শুক্রবার রাত ১টার দিকে নির্বাচনের ফল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার ইলিয়াস কাঞ্চন।

এর আগে সন্ধ্যায় ভোট গণনার সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে সভাপতি পদে চিত্রনায়িকা মৌসুমীর জয়ী হয়েছেন।

বিষয়টি নিয়ে গুজব বলে মন্তব্য করেছেন দুই সভাপতি প্রার্থী মিশা সওদাগর ও মৌসুমী। রাত সাড়ে ৮টার দিকে প্রযোজক সমিতির কক্ষে বসে দুই সভাপতি প্রার্থী সাংবাদিকদের বলেন, এ খবর গুজব।

সেই খবরকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছেন খল অভিনেতা মিশা সওদাগর। তিনি বলেন, ফেসবুকে মৌসুমীর বিজয়ের খবর সত্য নয়। তিনি বলেন, রেজাল্ট যা হয় মেনে নেব। দর্শকদের আগাম শুভেচ্ছা। বিশেষ করে মৌসুমীর দর্শকদের, আমরা সবাই মৌসুমীর দর্শক।

বৃষ্টি উপেক্ষা করে সকাল ৯টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলে বিকাল ৫টা পর্যন্ত। ভোটের আগ থেকে উত্তাপ থাকলেও শেষ পর্যন্ত কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। ভোট হয়েছে সুষ্ঠুভাবেই।

এবারের নির্বাচনে মোট ৪৪৯ জন ভোটারের মধ্যে ৩৮৬টি ভোট পড়ে বলে গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন নির্বাচনের আপিল বোর্ডের প্রধান শামছুল আলম।

এবারের শিল্পী সমিতির নির্বাচন নানা কারণেই ব্যতিক্রম। ভোট গ্রহণের আগে শিল্পীদের মধ্যে চলেছে কাঁদা ছোঁড়াছুড়ি। এছাড়া এবার প্রথমবারের মতো কোনো নারী প্রার্থী সভাপতি পদে লড়েছেন।

ভোটের ফলাফল:

সভাপতি পদে মিশা সওদাগর পেয়েছেন ২২৭ ভোট ও তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্রপ্রার্থী মৌসুমী পেয়েছেন ১২৫ ভোট। সহ-সভাপতি পদ দুটিতে মনোয়ার হোসেন ডিপজল (৩১১) ও রুবেল (২৯৩) ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তাদের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি নানা শাহ ৯৮ ভোট পেয়েছেন।

সাধারণ সম্পাদক পদে জায়েদ খান ২৮৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ইলিয়াস কোবরা ৬৮ ভোট পেয়েছেন।

সহ-সম্পাদক পদে আরমান ২৮১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বি সাংকো পাঞ্জা ৭১ ভোট পেয়েছেন।

আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে মামনু ইমন পেয়েছেন (২৪৫) ভোট ও তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি নূর মোহাম্মদ খালেদ আহমেদ পেয়েছেন ১০৫ ভোট।

সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে জাকির হোসেন ২৩০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন তার প্রতিদ্বন্দ্বি ডন পেয়েছেন ১২২ ভোট।

এছাড়া সাংগঠনিক সম্পাদক পদে একক প্রার্থী থাকায় সুব্রতকে বিজয়ী ঘোষণা করায় ওই পদটিতে ভোট গ্রহণ হয়নি। কার্যকরী সদস্য পদ রয়েছে ১১টি। এই পদগুলোর জন্য প্রার্থী হয়েছেন ১৪ জন। তাদের প্রাপ্ত ভোট হল-

অঞ্জনা সুলতানা-৩২৪, অরুনা বিশ্বাস-৩১৫, আলীরাজ-৩৩৬, আফজাল শরীফ-২৯৩,আসিফ ইকবাল-৩১৪, আলেক জান্ডার বো-৩৩৭, জেসমিন-৩০৯, জয় চৌধুরী-৩০৩, বাপ্পারাজ-৩০১, মারুফ আকিব-২৭৩, রোজিনা-৩২০। এছাড়া পরাজিত তিন প্রার্থীদের প্রাপ্ত ভোট হল- নাসরিন (১৮১), রঞ্জিতা (১২১) ও শামীম খান (চিকন আলী) ২০৩।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 41 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com