ময়মনসিংহে যুবলীগ নেতা হত্যা: মামলা না নেয়ায় ডিআইজি অফিস ঘেরাও

Print

মোঃ খলিলুর রহমান,ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ
ময়মনসিংহ নগরীর আকুয়া এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মহানগর যুবলীগ সদস্য সাজ্জাদ আলম শেখ আজাদ ওরফে আজাদ শেখ হত্যার ঘটনায় ৬ দিন পার হলেও মামলা নেয়নি কোতোয়ালী মডেল থানা পুলিশ।

এরই প্রতিবাদে আবারও সড়ক অবরোধ ও ডিআইজি অফিস ঘেরাও করে বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ এবং মানবব্ন্ধন করেছে নিহত আজাদের স্বজন, জেলা ও মহানগর যুবলীগের নেতা কর্মীরা। একই সঙ্গে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মামলা রজু করা না হলে নিজেরাই হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ ও ধর্মমন্ত্রীর কার্যালয় ঘেড়াও করবে বলে ঘোষনা দিয়েছেন আজাদের স্ত্রী।

সোমবার (৬ আগস্ট) দুপুরের রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয়ের প্রধান সড়ক অবরোধ করে প্রায় ২ ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন ও সমাবেশে এই ঘোষণা দেয়া হয়। পরে রেঞ্জ ডিআইজি মামলা নেয়ার আশ্বাস দিলে নেতাকর্মীরা সড়ক অবরোধ ও ঘেরাও তোলে নেন।

এসময় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল, পৌর মেয়র ইকরামুল হক টিটু, জেলা আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক এইচ এম ফারুক, শাহ শওকত উসমান লিটন, মহানগর আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক শাহীনুর রহমান শাহীন, যু্গ্ম আহ্বায়ক রাসেল আব্দুল্লাহ, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শাহ আলম শেখ মাসুম, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক মিন্টু, মহানগর কৃষকলীগের সভাপতি এবিএম সিদ্দিক, নিহত আজাদের স্ত্রী দিলরুবা আক্তার প্রমুখ।

মানববন্ধন ও সমাবেশে আজাদের স্বজনরা ছাড়াও এলাকাবাসী ও যুবলীগের নেতা কর্মীরা অংশ নেন।

আজাদের স্ত্রী দিলরুবা আক্তার বলেন, ৬ দিন আগে থানায় মামলা দিয়েছি। ওই এজাহারে ধর্মমন্ত্রীর ছেলে মোহিত উর রহমান শান্তকে প্রধান আসামি করে ২৫ জনের নাম উল্লেখ্য রয়েছে। এজাহারে মন্ত্রীর ছেলের নাম দেয়ায় এখনো পুলিশ মামলা নিচ্ছে না। মামলা না নিয়ে আমাদের উল্টাপাল্টা কথা বলছেন।

এসময় তিনি অভিযোগ করে বলেন, মন্ত্রীর ছেলে বলে কি পুলিশ আমার স্বামী হত্যাকান্ডের মামলা নিবে না। উনিতো ধর্মমন্ত্রী। উনারতো ধর্ম থাকার কথা। তাহলে কি ধরে নিবো উনার ধর্ম নাই। আমার স্বামীওতো যুবলীগ করতো। সে মহানগর আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ছিল। উনি বিএনপি, জামায়াত বা শিবির করে নাই, আওয়ামী লীগ করেছে। আর আওয়ামী লীগ করেছে বলেই আজ আমার স্বামীকে তারা হত্যা করেছে। আমি কি আমার স্বামী হত্যার বিচার পাব না?

এ বিষয়ে ময়মনসিংহ কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি (ইনটেলিজ্যান্স ও কমিউনিটি পুলিশিং) মুশফিকুর রহমান বলেন, আমরা একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তবে অভিযোগটি তদন্ত করা হচ্ছে।

এদিকে, আজাদ হত্যার পর থেকেই ধর্মমন্ত্রী মতিউর রহমানের ছেলে মহানগর আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহিত উর রহমান শান্তকে দায়ী করে আসছে আজাদের স্ত্রী ও স্বজনরা। আজকেও বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধনে ধর্মমন্ত্রীর ছেলের বিচার চেয়ে শ্লোগান দেয়া হয়।

উল্লেখ্য, গত ৩১ জুলাই দুপুরে দলীয় বিরোধের জেরধরে প্রকাশ্যে মহানগর যুবলীগের সদস্য আজাদ শেখকে গুলি, দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে একই এলাকার যুবলীগের কর্মীরা। আজাদ এক সময় মোহিত উর রহমান শান্তর গ্রুপ করতেন। পরে বনিবনা না হওয়ায় জেলা আ.লীগের সাধারন সম্পাদক এড মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল ও পৌর মেয়র ইকরামুল হক টিটুর গ্রুপে যোগ দেন বলে জানা গেছে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 175 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com