যে কারণে ইসরাইলি কারাগারে মারা হলো ফিলিস্তিনি যোদ্ধাকে

Print

ইসরাইলি কারাগারে বিনা চিকিৎসায় মারা হয়েছে ফিলিস্তিনের এক যোদ্ধাকে। যিনি তার জীবনের বেশিরভাগ সময় মৃত্যুর আগ মূহুর্ত পর্যন্ত ইসরাইলের রিমন কারাগারে বন্দি ছিলেন। তিনি কী এমন অপরাধ করেছিলেন?

তার মৃত্যুর জন্যই ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষের সমালোচনা করা হচ্ছে বিশ্বজুরে।

৫১ বছর বয়সি ফারিস বারউড ফিলিস্তিনের গাজার অধিবাসী। গত বুধবার ইসরাইলের রিমন কারাগারে তিনি মারা যান।

বারউড ১৯৯১ সালে আটক হয়েছিলেন। ইসরাইলি বসতি স্থাপনকারীদের হত্যার অভিযোগে তাকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

বারউডের ২ বছর বয়সের সময় তার বাবা মারা যান। তার মা তাকে লালন-পালন না করতে পারায় তিনি গাজার আল-আমান অনাথ আশ্রমে বেড়ে উঠেছেন।

তিনি ১৮ বছর বয়স পর্যন্ত ওই অনাথ আশ্রমে বড় হয়েছেন। এর পাঁচ বছর পরে ইসরাইলি বসতি স্থাপনকারীদের হত্যার অভিযোগে তাকে আটক করা হয়।

এদিকে ইসরাইল ৩০ বন্দির মুক্তির তালিকা প্রকাশ করেছিল যার মধ্যে বারউডেরও নাম ছিল।

এ ঘটনায় তার বোন ফায়জা বারউড বলেন, আল্লাহ তাকে ইসরাইলি কারাগারের অত্যাচার থেকে মুক্তি দিয়েছেন।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 52 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com