যে কারণে শরীরে অস্বাভাবিক লোম হয়

Print

চিকিৎসকের কাছে মাঝে মাঝেই অনিয়মিত মাসিক, স্থূলতা আর শরীরের বিভিন্ন স্থানে অস্বাভাবিক হারে লোম বেড়ে যাওয়ার সমস্যা নিয়ে কিছু তরুণী বা কিশোরী আসে সমাধান চাইতে। এ সমস্যাটিকে চিকিৎসা শাস্ত্রের ভাষায় বলে পলিসিস্টিক ওভারীয়ান সিনড্রোম বা সংক্ষেপে পিসিও।

সবরকম বৈশিষ্ট্য সব পলিসিস্টিক রোগীর থাকে না। স্টেইন ও লেভেন্থাল ১৯৩৫ সালে সর্বপ্রথম এই সমস্যার কারণ ও প্রতিকার নিয়ে কাজ করেছেন বলে অনেকদিন পর্যন্ত এটা স্টেইন লেভেন্থাল সিনড্রোম নামেই পরিচিত ছিল।

বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী পলিসিস্টিক ওভারীর রোগীরা চারটি ভাগে ভাগ করা যায়।

ফেনোটাইপ এ, ফেনোটাইপ বি, ফেনোটাইপ সি ও ফেনোটাইপ ডি।

পলিসিস্টিক ওভারী রোগীদের মেটাবলিক ও হরমোনজনিত আরও কিছু সমস্যা হতে পারে। যেমন:

১.স্থূলতা বা ওজন বেশি থাকা, কোলেস্টেরল-এর মাত্রা বেশি থাকা।

২. ইনসুলিন হরমোন ঠিকমতো কাজ করতে পারে না তাই ইনসুলিনের আধিক্য থাকা সত্ত্বেও রক্তে শর্করার পরিমাণ বেড়ে যাওয়া।

৩. থাইরয়েড ও প্রোলেকটিন হরমোনের তারতম্য।

৪. রক্তে ভিটামিন ডি ও ইনোসিটোল নামের উপাদান কমে যাওয়া।

চিকিৎসা

পলিসিস্টিক ওভারীর চিকিৎসার জন্য কয়েকজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হয়। যেমন: হরমোন, গাইনী, চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ ও পুষ্টিবিদ এদের সবার সম্মিলিত মতামতেই এই ধরনের রোগীরা ভালো ফলাফল পেতে পারেন।

১. নিয়মিত হাঁটা, ওজন কমানো, উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার পরিহার ও টেনশনমুক্ত জীবনযাপন করতে হবে।

২. যার এন্ড্রোজেন হরমোন বেশি আছে,তাদের সিপ্রোটেরন এসিটেট ও স্পাইরোনোলেকটন জাতীয় ওষুধ ভালো কাজ করবে।

৩. মেটফরমিন জাতীয় ওষুধ ইনসুলিনকে কাজ করতে সাহায্য করে ও ওজন কমায়।

৪. নিয়মিতভাবে মাসিক হওয়ার জন্য জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল ভালো কাজ করে। এ ছাড়া আরও অনেক উপকার আছে পিলের।

৫. থাইরয়েড বা প্রোলেকটিন হরমোনের ওষুধ খেতে হবে প্রয়োজন বোধে।

৬. ভিটামিন ডি ও ইনোসিটোলের ঘাটতি পূরণ।

৭. যারা প্রেগন্যান্সি নিতে চান তাদের ডিম্বাণু তৈরি হওয়ার জন্য ওষুধ ও প্রয়োজনে ইনজেকশন দিতে হবে। ওষুধে কাজ না করলে ল্যাপারোস্কোপি করে ড্রিলিং করলে ভালো ফল পাওয়া যায়। পলিসিস্টিক ওভারী রোগীদের অনেকদিন পর্যন্ত ডিম্বাণু তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা ভালো থাকে।

ভবিষ্যতের জন্য ঝুঁকি

১. পরবর্তী জীবনে ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, স্ট্রোক ও হৃদরোগের ঝুঁকি থাকে।

২. দীর্ঘ সময় মাসিক বন্ধ ও স্থূলতার সমস্যা থাকলে পরবর্তী জীবনে জরায়ুর ক্যান্সার হতে পারে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 58 বার)


Print
bdsaradin24.com