লেখাপড়ার প্রলোভন দেখিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ, চিকিৎসক আটক

Print

নরসিংদীতে লেখাপড়া করানোর প্রলোভন দেখিয়ে এক স্কুলছাত্রীকে প্রায় দুই মাস বাসায় আটকে রেখে ধর্ষণসহ পাশবিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে। বিষয়টি স্থানীয়দের নজরে আসলে চিকিৎসককে আটক করে পুলিশের তুলে দেওয়া হয়।

শুক্রবার সকালে সদর উপজেলার দক্ষিণ শীলমান্দী গ্রামের সিরাজ উদ্দিনের বাড়িতে এঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত ডাক্তার জুলফিকার আলী গাজীপুর জেলার হোতা পাড়া থানার মনিপুর গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে। নির্যাতিতা ময়মনসিংহ জেলার এক দিনমজুরের মেয়ে।

নরসিংদী মডেল থানার পুলিশ জানায়, উত্তর শীলমান্দী এলাকায় ছনিয়া নিটওয়্যার মিলের শ্রমিকদের চিকিৎসক হিসেবে কর্মরত ছিলেন ডাক্তার জুলফিকার আলী। ২ মাস পূর্বে দক্ষিণ শীলমান্দী এলাকার সিরাজ উদ্দিনের বাড়িতে বাসা ভাড়া নেন। ওই সময় ভাগনি পরিচয় দিয়ে নির্যাতিতা মেয়েটিকে নিয়ে বাসায় ওঠেন তিনি। এরপর থেকে মেয়েটিকে বাসায় আটকে রেখে দিনের পর দিন ধর্ষণ করেছেন তিনি। চিকিৎসক ও নির্যাতিতার গতিবিধি সন্দেহ হলে তাদের উপর নজর রাখতে শুরু করেন বাড়ি মালিক। মেয়েটি বাড়ির মালিককে সবকিছু খুলে বলেন। পরে বাড়ির মালিক ডাক্তারকে বাসায় ঢেকে এনে পুলিশের হাতে তুলে দেন।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 29 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com