শিক্ষার্থীদের বড় ধরনের ক্ষতি হয়েছে, কিন্তু জীবনের বিকল্প কিছু নেই

Print

শিক্ষার্থীদের বড় ধরনের ক্ষতি হয়েছে, কিন্তু জীবনের বিকল্প কিছু নেই

শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা দেওয়ার সক্ষমতার অভাব থাকলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা উচিত: পরামর্শ শিক্ষাবিদদের

ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, করোনার কারণে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার ক্ষতি হয়েছে। কিন্তু শিক্ষার্থীদের জীবনকে হুমকির মুখে ফেলে স্কুল খুলে দেওয়া উচিত হবে না। সরকার যদি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে তাহলে সেটা হবে যুক্তিসংগত। জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়েই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা বা খুলে দেওয়ার পরিকল্পনা করা উচিত সরকারের। করোনা সংক্রমণ বাড়লে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুললেও অভিভাবকদের মধ্যে ভয় কাজ করবে, পরিস্থিতি সামনে আরও ভয়াভহ হলে অভিভাবকরাই তাদের সন্তানদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠাবে না। তাদের মতে, সরকার স্কুল খুলে দিলেও আমাদের সন্তানদের স্কুলে পাঠানো নির্ভর করবে সংক্রমণ বাড়া-কমার ওপর।  ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক কামরুল হাসান মামুন বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিয়ে সরকার যদি মনে করেন পরিস্থিতি সামাল দিতে পারবে না। সেক্ষেত্রে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্তই ঠিক হবে। আমাদের করোনা পরিস্থিতি পৃথিবীর অনেক দেশের চেয়ে ভালো। বিদেশের অবস্থা যদি আমাদের দেশের মতো হতো, তারা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা রাখতো। কিন্তু এ ক্ষেত্রে আমাদের দুর্বলতা রয়েছে।শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে শিক্ষার্থীদের বিপদের মুখে ঠেলে না দেওয়াই ভালো। প্রকৃতপক্ষে সরকারের উচিত শিক্ষক, ডাক্তার, শিক্ষাবিদ, গুণী ও বিজ্ঞ ব্যক্তিদের সঙ্গে আলোচনা করা। সম্পাদনা: রায়হান রাজীব

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 22 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ